kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বিকল্প বাজার খোঁজা হচ্ছে : বাণিজ্যমন্ত্রী

করোনাভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাব পোশাক শিল্পে

বিআইসিসিতে শুরু হলো তিন দিনব্যাপী অগ্নিনিরপাত্তা সরঞ্জামের প্রদর্শনী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের কাঁচামাল আমদানিতে প্রভাব পড়েছে। এই সংকটকালে কাঁচামাল আমদানির জন্য বিকল্প বাজার খোঁজা হচ্ছে। আমরা আশা করছি, বিকল্প বাজার পেয়ে যাব, সে জন্য সময় দরকার। যে কাঁচামাল আনতে হয় সেটি অন্য কোথাও থেকে পেতে হলে তো সময় দিতে হবে।’ গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) তিন দিনের ‘ইন্টারন্যাশনাল ফায়ার সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি এক্সপো (ইফসি)’ উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে বাণিজ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের বহুমাত্রিক বাণিজ্যিক সম্পর্ক রয়েছে। সম্প্রতি দেশটিতে নভেল করোনাভাইরাস মহামারি রূপ ধারণ করায় বাণিজ্যিক সম্পর্কে এর নেতিবাচক প্রভাব নিয়ে দুশ্চিন্তার বিষয় আছে।

চীন থেকে কাঁচামাল ও যন্ত্রপাতি আমদানি ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে—বিজিএমইএর এমন শঙ্কা প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এটি গভীর সমস্যা, হঠাৎ করে এ বিষয়ে বলা মুশকিল। রেডিমেড গার্মেন্টসের সেক্টরের সাপ্লাইটা হঠাৎ করে কোথায় সোর্সিং করব! করোনাভাইরাসের প্রভাব প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘গার্মেন্ট সেক্টরে করোনাভাইরাসের প্রভাব কী পরিমাণ পড়েছে সে ব্যাপারে খুব সম্ভবত ১৬ তারিখে আমরা একটি রিপোর্ট পাব। পাশাপাশি আমরা লক্ষ রাখছি ফ্যাক্টরিগুলোর সরবরাহের দিকটি। ইতিমধ্যে খবর পেয়েছি চীনের বাজার খুলতে শুরু করেছে। আমরা তা পর্যবেক্ষণ করছি।’

ফায়ার সেফটি এক্সপো সম্পর্কে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ফায়ার ফাইটিং যন্ত্রপাতি দেশেই তৈরি করতে হবে। শিল্পের জন্য ফায়ার সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি নিশ্চিত করা একান্ত প্রয়োজন। এ খাতের অনেক যন্ত্রপাতি এখনো আমরা আমদানি করছি। আমাদের সুযোগ ও দক্ষতা আছে এ ধরনের যন্ত্রপাতি তৈরি করার। এগুলো দেশেই তৈরি করতে হবে।’ ইলেকট্রনিক সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মো. মোতাহার হোসান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক লে. কর্নেল এস এম জুলফিকার রহমান, এফবিসিসিআইয়ের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মুনতাকিম আশরাফ ও বিজিএমইএর প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহা. আব্দুস সালাম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা