kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

সম্পদ শেয়ার করলে দারিদ্র্য ইতিহাসে চলে যেত : গভর্নর

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মানুষ কিন্তু সম্পদ শেয়ার করে না। সম্পদ যদি সবাই ভাগাভাগি করতাম, যেখানে প্রয়োজন সেখানে দিতাম প্রাতিষ্ঠানিকভাবে হোক, সামাজিকভাবে হোক, পারিবারিকভাবে হোক আর ব্যক্তিগতভাবে হোক। তাহলে কিন্তু আমাদের দারিদ্র্য ইতিহাসে চলে যেত। গতকাল শনিবার প্রাইম ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানের একটি বক্তব্যের উদ্ধৃতি টেনে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির এসব কথা বলেন। রাজধানীর আগারগাঁওয়ের এলজিইডি ভবনে ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সামাজিক দায়বদ্ধতা কর্মসূচির আওতায় প্রাইম ব্যাংক ফাউন্ডেশন শিক্ষা সহায়তা কর্মসূচিতে চলতি বছর দেশের ২৬৩ জন দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীকে উচ্চশিক্ষা সম্পন্ন করার জন্য প্রতি মাসে ২৬০০ টাকা প্রদান করা হবে। ২০০৭ সাল থেকে প্রাইম ব্যাংক দীর্ঘ মেয়াদে এই বৃত্তি প্রদান করে আসছে।

রাশিয়ান একজন লেখকের উদ্ধৃতি দিয়ে গভর্নর আরো বলেন, আপনি একটি মোমবাতি জ্বালিয়ে দেবেন, সেই মোমবাতি দিয়ে আবার হাজারো মোমবাতি জ্বলবে। আজকে সম্মাননা পাওয়া চারজন ছাড়াও আমি দেখছি, এমবিবিএস ডাক্তার ২৮৭ জন, ইঞ্জিনিয়ার ২২৮ জন, বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ শিক্ষক ৭৫ জন, বিসিএস ও সরকারি কর্মকর্তা ৫২ জন, ব্যাংকার ১৪২ জন। বিশেষ করে যাঁরা চিকিৎসা ও শিক্ষকতা করছেন তাঁরাই এই মোমবাতি জালিয়ে দেবেন। আর এ জন্য আপনাদের সহায়তা করছে প্রাইম ব্যাংক। সভাপতির বক্তব্যে প্রাইম ব্যাংকের চেয়ারম্যান আজম জে চৌধুরী বলেন, ‘সারা দেশে যারা গরিব ও মেধাবী তাদের এই বৃত্তির আওতায় নিয়ে আসি। আমরা যাদের বৃত্তি দিচ্ছি তাদের সাফল্যের পরিমাণ ৯৮ শতাংশ। কয়েক বছর ব্যাংকগুলো অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা