kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

পুঁজিবাজারে বড় উত্থান

মূলধন বাড়ল ৪৮১১ কোটি
পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত রাষ্ট্রায়ত্ত চার ব্যাংকের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



পুঁজিবাজারে বড় উত্থান

শেয়ার বিক্রির চাপে পর্যুদস্ত পুঁজিবাজারে এবার বড় উত্থান ঘটেছে। শেয়ার কেনার চাপ বাড়ায় মূল্যসূচকে বড় উত্থান হয়েছে। এক দিনে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মূল্যসূচক বেড়েছে ৮১ পয়েন্ট। আবার কেনার চাপে বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ার দামও বেড়েছে। এক দিনেই পুঁজিবাজারে মূলধন বেড়েছে চার হাজার ৮১১ কোটি টাকা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, স্টেকহোল্ডারদের নানামুখী তৎপরতায় পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীর সক্রিয়তা বেড়েছে। পুঁজিবাজারে ছোট-বড় বিনিয়োগকারী অংশগ্রহণ বেড়েছে। বাজারবিমুখ বিনিয়োগকারীরা ফিরতে শুরু করেছে। ক্রমেই বিনিয়োগকারীরা বাজারে সক্রিয় হলে গতিশীলতার পথে এগোবে পুঁজিবাজার। গতকাল বৃহস্পতিবার কেনার চাপ থাকায় ৫৪ শতাংশ কম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৬৭ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে ৮১ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২৪২ কোটি ৮২ লাখ টাকা আর সূচক বেড়েছিল ৩০ পয়েন্ট। সেই হিসাবে পুঁজিবাজারে মূল্যসূচকে বড় উত্থান হয়েছে। লেনদেনও বেড়েছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর কেনার চাপ বেশি থাকায় মূল্যসূচকের উত্থান ঘটে। সকাল ১১টার পর বিক্রির চাপ বাড়লে সূচক নিম্নমুখী হয়। পৌনে ১১টার পর শেয়ার কেনার চাপ বাড়লে সূচকে বড় উত্থান ঘটে। এতে মূল্যসূচকে বড় উত্থানের মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে।

দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ১৪৯ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্য সূচক ৩৫ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৪০৬ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ২৬ পয়েন্ট বেড়ে ৯৪০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া ৩৫৩টি কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৯৪টির, কমেছে ১১২টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৭টি কম্পানির শেয়ারের দাম।

লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে রয়েছে স্কয়ার ফার্মা। কম্পানির লেনদেন হয়েছে ২১ কোটি ৩২ লাখ টাকা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাফার্জ হোলসিমের লেনদেন হয়েছে ১১ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। ১১ কোটি চার লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে এডিএন টেলিকম। অন্য শীর্ষ কম্পানিগুলো হলো সি পার্ল বিচ, ব্র্যাক ব্যাংক, গ্রামীণফোন, রিং সাইন টেক্সটাইল, বিকন ফার্মা, কেপিসিএল ও স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকস। 

দাম বৃদ্ধির শীর্ষে রয়েছে আনলিমা ইয়ার্ন, ইস্টার্ন ইনস্যুরেন্স, স্কয়ার ফার্মা, সি পার্ল বিচ, সোনার বাংলা ইনস্যুরেন্স, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক, এফএএস ফাইন্যান্স, আইসিবি এএমসিএল ফার্স্ট অগ্রণী ব্যাংক মিউচুয়াল ফান্ড, রিপাবলিক ইনস্যুরেন্স ও  স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক। অন্যদিকে দাম কমার শীর্ষে রয়েছে এসএস স্টিল, এডিএন টেলিকম, আজিজ পাইপস, প্রিমিয়ার সিমেন্ট, ইউনাইটেড এয়ার, রিং সাইন টেক্সটাইল,  হাইডেলবার্গ সিমেন্ট, আরামিট সিমেন্ট, গোল্ডেন হার্ভেস্ট অ্যাগ্রো ও নর্দার্ন জুট।

অন্য বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হয়েছে আট কোটি ৬৩ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে ১২৯ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল সাত কোটি ৯৯ লাখ টাকা। গতকাল সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২১৭টি কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৩টির, কমেছে ৮৭টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টি কম্পানির শেয়ারের দাম।

পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত রাষ্ট্রায়ত্ত চার ব্যাংকের : পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত চারটি বাণিজ্যিক ব্যাংক। গতকাল বৃহস্পতিবার সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতি তিন মাস অন্তর এ বৈঠক করে আসছে ব্যাংকগুলো। বৈঠকে সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান এবং এমডিরা উপস্থিত ছিলেন।

সোনালী ব্যাংকের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সভায় অন্যান্য নিয়মিত বিষয়ে আলোচনার পাশাপাশি পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের বিষয়টিও পর্যালোচনা করা হয়। পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বাড়ানোর বিষয়ে সভায় ইতিবাচক মতামত প্রদান করা হয়। এ লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা