kalerkantho

বুধবার । ২২ জানুয়ারি ২০২০। ৮ মাঘ ১৪২৬। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

রিং শাইন টেক্সটাইলের লেনদেন শুরু

প্রথম দিন থেকেই সার্কিট ব্রেকার ক্রেতা থাকলেও বিক্রেতা সংকট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নানা জল্পনা-কল্পনা শেষে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত রিং শাইন টেক্সটাইল লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন শুরু হয়েছে গতকাল বৃহস্পতিবার। প্রথম দিনে কম্পানিটির শেয়ার কিনতে আগ্রহ থাকলেও বিক্রেতারা সংকটে পড়ে। এতে সার্কিট ব্রেকার নির্দেশিত সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ পর্যন্ত দাম বেড়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। প্রতিটি ১০ টাকা দামের শেয়ার পাঁচ টাকা বেড়ে ১৫ টাকায় লেনদেন হয়েছে। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, তালিকাভুক্ত কম্পানির শেয়ার প্রথম দিন থেকে সার্কিট ব্রেকারের আওতায় থাকবে বলে নির্দেশ দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এর আগে প্রথম দুই দিন কোনো সার্কিট ব্রেকার ছিল না, তৃতীয় দিন থেকে সার্কিট ব্রেকারের আওতায় পড়ত।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, লেনদেনের প্রথম দিন সার্কিট ব্রেকার না থাকায় কারসাজি গোষ্ঠী কৌশলে শেয়ারের দাম বাড়িয়ে আকাশচুম্বী করে। আর সুযোগ বুঝে বেশি দামে শেয়ার বিক্রি করে সটকে পড়ে। এতে বাড়তি দামের শেয়ারের ভার চাপে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীর ওপর। উচ্চ দামের শেয়ারে বিক্রির চাপ বাড়লে ছোট বিনিয়োগকারী আটকে যায়।

ডিএসইর তথ্যানুযায়ী, প্রথম দিন রিং শাইনের শেয়ার লেনদেন শুরু হয় ১৫ টাকা দিয়ে। এটিই সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন টাকায় লেনদেন। শেয়ারটি দিন শেষেও ১৫ টাকায় দাঁড়িয়েছে। ফলে ১০ টাকায় যাঁরা শেয়ার বরাদ্দ পেয়েছেন তাঁরা প্রতি শেয়ারে পাঁচ টাকা করে মুনাফা করতে পেরেছেন। এ ছাড়া প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে প্রাপ্য শূন্য দশমিক ১৫টি বোনাস শেয়ারের দাম রয়েছে ২ দশমিক ২৫ টাকা। এ হিসাবে ৫০ শতাংশ মুনাফা করার পাশাপাশি আরো ২২.৫০ শতাংশ মুনাফা পেয়েছেন বিনিয়োগকারীরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা