kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ডিমের দাম কমেছে, পেঁয়াজ অপরিবর্তিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডিমের দাম কমেছে, পেঁয়াজ অপরিবর্তিত

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিএনপি বাজারে গতকাল রবিবার দুপুরে বাজার করতে এসেছিলেন ব্যবসায়ী আকরাম হোসেন। দুই হাতে শীতের সবজি নিয়ে এক দোকানে দাঁড়ালেন পেঁয়াজ কেনার জন্য। দোকানদার হাবিবুর রহমানকে পেঁয়াজের দাম জিজ্ঞেস করলে জানানো হয়, চীনা পেঁয়াজ ১২০ টাকা; মিয়ানমার থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ ২২০ টাকা। দাম শোনার পর আর বেশিক্ষণ দোকানে অপেক্ষা করলেন না তিনি। পেঁয়াজ না কিনে চলে যাওয়ার পথে এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ‘এত টাকা দিয়ে পেঁয়াজ কেনার কোনো ইচ্ছা নেই। আরো কমুক। তারপর কিনব’। তবে বাজারে পেঁয়াজের দাম না কমলেও ডিমের দাম কমেছে হালিতে তিন টাকা; আর ডজনে পাঁচ টাকা।

গতকাল দুপুরে ঘণ্টাব্যাপী বিএনপি বাজারে পেঁয়াজের দোকানগুলোতে পর্যবেক্ষণ করে একজন ক্রেতাকেও পেঁয়াজ কিনতে দেখা গেল না। সব দোকানে পেঁয়াজ ভরা। চীনা পেঁয়াজ ও মিয়ানমার থেকে আমদানি করা পেঁয়াজে ভরপুর দেখা গেছে দোকানগুলোতে। তবে নতুন পেঁয়াজও চোখে পড়েছে দু-একটি দোকানে। দেশি পেঁয়াজের দাম ২০০ টাকা।

ব্যবসায়ীরা জানান, সারা দিনে পেঁয়াজ বিক্রির হার খুবই কম। এক কেজি কেউ কিনছে না। সবাই আধাকেজি বা আড়াই শ গ্রাম পেঁয়াজ কিনছে।

দোকানদার হাবিবুর রহমান বলেন, তিন দিন আগে এক বস্তা (৬০ কেজি) পেঁয়াজ কিনে এনেছি। সেখান থেকে বড় জোর এক কেজি বিক্রি হয়েছে এই তিন দিনে। আরেক ব্যবসায়ী আকাশ জানালেন, মিয়ানমারের পেঁয়াজ এখন কেজিতে ২২০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। আর চীন থেকে আসা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১৩০ টাকার মধ্যে। রাজধানীর শেওড়াপাড়া বাজার, বিএনপি বাজারসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে ক্রেতা ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, বাজারে নতুন পেঁয়াজ বাজারে এলেও তার প্রভাব পড়েনি বাজারে। তবে পেঁয়াজের দাম না কমলেও ডিমের দাম কমেছে। খুচরা বাজারে ডিমের দাম হালিতে এখন বিক্রি হচ্ছে ৩২ টাকা। আর এক ডজন বিক্রি হচ্ছে ৯৫ টাকা। এক সপ্তাহ আগে ডিমের দাম হালিতে ছিল ৩৫ টাকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা