kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন

৪ মাসে লক্ষ্যমাত্রার ৬৩% ঋণ সরকারের

সজীব হোম রায়   

১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ব্যাংক খাত থেকে সরকারের ঋণ বাড়ছেই। জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এ চার মাসে সরকার ব্যাংক খাত থেকে ঋণ নিয়েছে ২৯ হাজার ৮৬৩ কোটি টাকা। পুরো অর্থবছরের জন্য ব্যাংকিং খাত থেকে যে পরিমাণ ঋণ নেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে এটি তার ৬৩ শতাংশ। বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বাজেট ঘাটতি মেটানোর জন্য সরকার অভ্যন্তরীণ ব্যবস্থা থেকে দুভাবে ঋণ নেয়। এর একটি হচ্ছে ব্যাংক ব্যবস্থা এবং অন্যটি সঞ্চয়পত্র বিক্রি। সঞ্চয়পত্র বিক্রি কমে যাওয়া এবং রাজস্ব ঘাটতির কারণে সরকার ব্যাংক খাতের দিকে বেশি ঝুঁকছে। এ ছাড়া ঘাটতি মেটাতে বিদেশি অর্থায়ন থেকেও ঋণ নিয়ে থাকে সরকার।

জুলাই-আগস্ট মাসে এনবিআরের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৮ হাজার ৯৩৮ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। কিন্তু আদায় হয়েছে ২৯ হাজার ৬২০ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। অর্থাৎ এই দুই মাসে রাজস্ব আদায়ে ঘাটতি প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা। ঘাটতি পূরণে সরকার ব্যাংক ও আর্থিক খাতের দিকে ঝুঁকছে।

অন্যদিকে জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তরের তথ্যে দেখা গেছে, চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে (জুলাই-আগস্ট) তিন হাজার ৩৬৪ কোটি টাকার নিট সঞ্চয়পত্র বিক্রি হয়েছে। এটি গত বছরের একই সময়ের তিন ভাগের এক ভাগ। মূলত কর বৃদ্ধি এবং বাধ্যবাধকতা আরোপ করায় সঞ্চয়পত্র বিক্রিতে কিছুটা ভাটা পড়েছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের দেওয়া সর্বশেষ তথ্য মতে, চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে সরকারের ব্যাংকঋণের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ৪৭ হাজার ৩৬৪ কোটি টাকা। কিন্তু গত চার মাসেই (জুলাই-অক্টোবর) সরকার ব্যাংক খাত থেকে ২৯ হাজার ৮৬৩ কোটি টাকা ঋণ নিয়েছে। অথচ গত অর্থবছরের একই সময়ে সরকার ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে ঋণ নিয়েছিল মাত্র তিন হাজার ৬০৮ কোটি টাকা। অক্টোবরের ১ থেকে ১৫ তারিখ এ ১৫ দিনেই সরকার ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে ঋণ নিয়েছে চার হাজার ২৬২ কোটি টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যা ছিল তিন হাজার ছয় কোটি টাকা। চলতি অর্থবছর নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে জুলাই-আগস্ট পর্যন্ত সময়ে সরকার ঋণ নিয়েছে ৩৯০ কোটি ১০ লাখ টাকা। গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরের একই সময়ে সরকার নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়েছিল ৩৪ কোটি ৭৯ লাখ টাকা।

চলতি অর্থবছরের জুলাই-আগস্ট পর্যন্ত দেশে অভ্যন্তরীণ ঋণ বেড়েছে ২.৩ শতাংশ। গত অর্থবছরে একই সময়ে বেড়েছিল ০.৯৫ শতাংশ। সামগ্রিকভাবে ঋণপ্রবাহ বাড়লেও এর বড় অংশই যাচ্ছে সরকারি খাতে। গত অর্থবছরের জুলাই-আগস্টে সরকারি খাতে ঋণপ্রবাহ বেড়েছিল ৭.১৬ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের একই সময়ে বেড়েছে ২২.১৬ শতাংশ। আর গত বছরের জুলাই-আগস্টে বেসরকারি খাতে ঋণপ্রবাহ বেড়েছিল ০.২৯ শতাংশ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা