kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

বন্ড ছাড়ার পদক্ষেপ

পুঁজিবাজার থেকে বড় তহবিল নেবে সরকারি বিদ্যুৎ কম্পানি

রফিকুল ইসলাম   

১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পুঁজিবাজার থেকে বড় তহবিল নেবে সরকারি বিদ্যুৎ কম্পানি

আশুগঞ্জ পাওয়ারের ১০০ কোটি টাকার বন্ডের সাবক্রিপশন চলছে

ব্যাংকনির্ভরতা কমিয়ে দীর্ঘমেয়াদি অর্থের সংস্থান করতে বন্ড ইস্যু করে মূলধন তুলতে আগ্রহী সরকারি কয়েকটি বিদ্যুৎ কম্পানি। এরই মধ্যে বন্ড ইস্যুর মাধ্যমে রাষ্ট্রায়ত্ত এক কম্পানি ১০০ কোটি টাকা মূলধন উত্তোলনের অনুমোদন পেয়েছে। সব শর্ত পূরণ করে বন্ড ইস্যুর অনুমোদন দিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। অনুমোদন পাওয়া ওই বন্ডের সাবক্রিপশন চলছে। সরকারি কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বন্ডের মাধ্যমে মূলধন পেতে আগ্রহী হয়েছে।

গভীরতা বাড়ানো ও আস্থা ফেরাতে সরকারি কম্পানিকে পুঁজিবাজারে আনতে দীর্ঘদিনের তাগিদ স্টেকহোল্ডার ও বিনিয়োগকারীদের। তবে আশ্বাসেই কেটে গেছে বছরের পর বছর। কিন্তু সরকারি কম্পানি পুঁজিবাজারে আসেনি। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে কম্পানিকে পুঁজিবাজারে আনতে বারবার আশ্বাস দেওয়া হচ্ছে। তবে কবে সরকারি কম্পানি পুঁজিবাজারে আসবে সে বিষয়ে কোনো নির্দেশনা নেই।

সূত্র জানায়, বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী কম্পানির জন্য দীর্ঘ মেয়াদে অর্থের জোগান প্রয়োজন হয়। কিন্তু ব্যাংক থেকে এই খাতে দীর্ঘ মেয়াদে অর্থের সংস্থান অনেক সময় সম্ভব হয় না। সে জন্য বিদ্যুৎ বিভাগের আওতাধীন কয়েকটি বিদ্যুৎ কম্পানি নিজেদের অর্থের চাহিদা পূরণে বন্ডের মাধ্যমে মূলধন উত্তোলন করতে আগ্রহী। আর এসব বিদ্যুৎ কম্পানির বন্ড ইস্যুকরণসংক্রান্ত একটি সভা ডেকেছে বিদ্যুৎ বিভাগ।

আজ বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ ভবনে এ বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত হবে। পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা, স্টক এক্সচেঞ্জ ও সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। বিদ্যুৎ বিভাগ ও পুঁজিবাজারসংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

পুঁজিবাজার সূত্র জানায়, সরকারি কম্পানি শেয়ার ছেড়ে তালিকাভুক্ত না হলেও বন্ড ইস্যুর মাধ্যমে দীর্ঘ মেয়াদে অর্থের সংস্থান করতে পুঁজিবাজার থেকে মূলধন নেওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছে সরকারি কয়েকটি কম্পানি। বিশেষ করে বিদ্যুৎ খাতের কম্পানি বন্ডের মাধম্যে দীর্ঘ মেয়াদে মূলধন সংস্থান করতে চায়। বাজারের গভীরতা বাড়ানো ও গতিশীল করতে বন্ড ইস্যুতে সব ধরনের সহযোগিতা করবে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

সম্প্রতি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে বন্ড ছেড়ে পুঁজিবাজার থেকে ১০০ কোটি টাকা তোলার অনুমতি পেয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত কম্পানি আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন। এ প্রতিষ্ঠানটি সরকারি খাতের প্রথম কম্পানি, যারা বন্ডের মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করছে।

আশুগঞ্জ পাওয়ার দুই লাখ বন্ড বাজারে ছেড়ে ১০০ কোটি টাকা মূলধন তুলবে। প্রতিটি বন্ডের দাম পাঁচ হাজার টাকা। এই টাকা দিয়ে কম্পানিটি ভূমি উন্নয়ন ও সিভিল ওয়ার্ক, প্রাথমিক জ্বালানি, যানবাহন ক্রয়, প্রকৌশলী ও পরামর্শক সেবা, চলতি মূলধন ও আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে। বন্ডটি নন-কনভার্টেবল অর্থাৎ এটি শেয়ারে রূপান্তরিত হবে না, বিনিয়োগকারীরা নির্দিষ্ট হারে সুদ পাবেন। সাত বছর মেয়াদি এই বন্ডে বার্ষিক সুদের হার সর্বনিম্ন ৮.৫ শতাংশ ও সর্বোচ্চ ১০.৫০ শতাংশ। ছয় মাস পর পর এই সুদ পাবেন বিনিয়োগকারীরা।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার এক কর্মকর্তা নাম না প্রকাশের শর্তে জানান, সরকারি ও বেসরকারি কম্পানির জন্য দীর্ঘ মেয়াদে অর্থের জোগানের জন্য পুঁজিবাজার সবচেয়ে উত্তম মাধ্যম। ব্যাংকের ঋণে উচ্চহারে সুদ না দিয়ে বন্ড ছেড়ে মূলধন উত্তোলন করা অপেক্ষাকৃত লাভজনক। কিন্তু ব্যবসায়ীরা আর্থিক হিসাবে স্বচ্ছতা বা অন্যান্য কারণে আসতে আগ্রহী হয় না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা