kalerkantho

রবিবার । ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৭ রবিউস সানি                    

লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে ‘বাংলা টাকা বন্ড’ চালু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে ‘বাংলা টাকা বন্ড’ চালু

লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে চালু হলো দেশের প্রথম ‘বাংলা টাকা বন্ড’। লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে বন্ডকে তালিকাভুক্ত করার অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ‘রিং দ্য বেল’ নামের অনুষ্ঠান উদ্বোধনকালে অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জন্য এটি একটি ঐতিহাসিক দিন। ‘বাংলা বন্ড’ চালু বিশ্ব অর্থনীতিতে বাংলাদেশের একটি বড় পদক্ষেপ। এই বন্ড চালুর মাধ্যমে বাংলাদেশে প্রবাসী বিনিয়োগ আরো সহজতর হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, আইএফসির এশিয়া এবং প্যাসিফিক অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট নেনা স্টেলকোভিক, ব্রিটেনের বাংলাদেশ হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনীম, বিডার চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব মনোয়ার আহমেদ এবং আইএফসির ডিরেক্টররা। লন্ডন সময় সকাল সাড়ে ৯টায় লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জ সেমিনার রুমে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিনিয়োগে উৎসাহ দেওয়ার জন্য লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জ চালু হয়েছে ‘বাংলা টাকা বন্ড’। এটি হবে একটি টাকা বন্ড। এই বন্ডের আকার হবে ১০০ কোটি ডলার। কিন্তু প্রাথমিকভাবে বাজার থেকে তোলা হবে এক কোটি মার্কিন ডলার বা ৮৪ কোটি টাকা। প্রবাসীরা ডলারে এই বন্ড কিনলেও প্রথমবারের মতো তা টাকায় রূপান্তর করে দেশের বিভিন্ন অবকাঠামোগত প্রকল্পে বিনিয়োগ করা হবে। বিশ্বব্যাংকের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স করপোরেশন (আইএফসি) হবে এই বন্ডের ইস্যু ম্যানেজার।

এ সময় মন্ত্রী উল্লেখ করেন, বাংলা বন্ড চালুর পেছনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদান। বাংলা বন্ড নামকরণটিও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া।

তিনি বলেন, এই প্রথম বাংলাদেশের টাকা কোনো আন্তর্জাতিক ফিন্যানশিয়াল মার্কেটের সঙ্গে সংযুক্ত হতে যাচ্ছে। টাকা লন্ডন স্টক মার্কেটে লেনদেন হবে। যে কেউ এই বন্ড কিনতে পারবে। ডলার দিয়ে এই বন্ড কিনতে হবে। সেই ডলার টাকায় কনভার্ট হয়ে তা বিনিয়োগ করা হবে। আইএফসি বাংলাদেশে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে বিনিয়োগ করেছে। এই এক বিলিয়ন ডলার ‘টাকা বন্ড’ ছাড়ার মাধ্যমে তাদের বিনিয়োগ আরো বাড়বে। প্রাথমিকভাবে এই বন্ডের মাধ্যমে যে অর্থ উত্তোলন করা হবে তা আইএফসি অর্থায়নের পরিচালিত বিভিন্ন অবকাঠামোগত প্রকল্পে বিনিয়োগ করা হবে। বন্ডের মেয়াদ পাঁচ বছর এবং সর্বোচ্চ ১০ বছর করা হতে পারে।

এদিকে বিশ্বব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স করপোরেশন (আইএফসি) এক সংবাদে ‘বাংলা টাকা বন্ড’ তালিকাভুক্তির খবর জানিয়েছে। আইএফসির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘বাংলা’ নামের বন্ডটি লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে এরই মধ্যে তালিকাভুক্ত হয়েছে। উদীয়মান বাজারে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ যুক্তরাজ্যের স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক এবং যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাংক অব আমেরিকা মেরিল লিঞ্চের ব্যবস্থাপনায় তিন বছর মেয়াদি এ বন্ড পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহ করবে। লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জের সিইও এবং লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জ গ্রুপের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন পরিচালক নিখিল রাথি এ নিয়ে বলেন, আইএফসির এই মাইলফলক বন্ড বৈশ্বিকভাবে বাংলা বন্ডের গোড়াপত্তন ঘটাল এবং আন্তর্জাতিক পুঁজিবাজারে বাংলাদেশি টাকার অবস্থান (প্রফাইল) তৈরি করল।

তিনি বলেন, ‘স্থানীয় মুদ্রায় লেনদেন ইস্যুকরণে লন্ডন গোটা বিশ্বে নেতৃত্ব দিচ্ছে। আমাদের পুঁজিবাজারে মসলা, ডিম এবং কমোডো বন্ডের পরিমাণ ২৩০ কোটিরও বেশি। আমরা লন্ডনে বাংলাদেশি টাকাকে স্বাগত জানাচ্ছি।’

আইএফসির এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট নিনা স্টোইলজকোভিচ বলেন, ‘ট্রিপল এ-রেটেড আইএফসি ইস্যুকৃত বাংলা বন্ডের মাধ্যমে বৈশ্বিক বাজারে টাকার অন্তর্ভুক্তি দেশটির দ্রুত বর্ধনশীল করপোরেশন, কৃষি উৎপাদন ও আর্থিক সেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা