kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বিশ্ব চালের বাজার

চাহিদা না থাকায় চার মাসে দাম সর্বনিম্ন

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমদানিকারক দেশগুলো থেকে চাহিদা কমায় বিশ্ববাজারে এ সপ্তাহে চালের দাম কমে চার মাসে সর্বনিম্ন হয়েছে। বিশ্বে চালের সবচেয়ে বড় রপ্তানিকারক অঞ্চল এশিয়া। বিশ্ববাজারে শীর্ষ রপ্তানিকারক দেশ ভারত, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনামের চালের চাহিদা থাকলেও সাম্প্রতিক আফ্রিকা থেকে আমদানি কমেছে। এ সপ্তাহে ভারতের ৫ শতাংশ ভাঙা চালের দাম কমে প্রতি টন হয়েছে ৩৬৫-৩৭০ ডলার। এক সপ্তাহ আগে এ চালের দাম ছিল ৩৬৮-৩৭২ ডলার। অন্ধ্র প্রদেশের একজন ব্যবসায়ী জানান, এশিয়া ও আফ্রিকার ক্রেতারা এখন আর তাড়াহুড়া করছে না। বাজার নিম্নমুখী থাকায় তারা অপেক্ষা করছে চালের দাম আরো কমবে। আফ্রিকা থেকে অবাসমতি চালের চাহিদা কমায় গত আগস্টে ভারতের চাল রপ্তানি এক বছর আগের একই সময়ের তুলনায় ২৯ শতাংশ কমে হয়েছে ছয় লাখ ৪৪ হাজার ২৪৯ টন। এদিকে স্বাভাবিক রয়েছে ভিয়েতনামের ৫ শতাংশ ভাঙা চালের দাম। বর্তমানে এ চালের দাম প্রতি টন ৩৫০ ডলার। এক সপ্তাহ আগের দামই অপরিবর্তিত রয়েছে। মেকংগ ডেল্টা প্রদেশের এক ব্যবসায়ী জানান, চাহিদা কম, একইভাবে সরবরাহও কম থাকায় চালের দাম পড়েনি। যদিও গত সেপ্টেম্বরে ভিয়েতনামের চালের দাম কমে হয় প্রতি টন ৩২৫ ডলার, যা ছিল এক বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। ভিয়েতনামের উপ কৃষিমন্ত্রী ফুয়াংগ ডাক তিয়েন বলেন, বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধি শ্লথ হয়ে যাওয়ায় চালের চাহিদা কমার অন্যতম কারণ। চালের দ্বিতীয় বৃহৎ রপ্তানিকারক দেশ থাইল্যান্ডও আমদানি চাহিদা কমায় বিপাকে রয়েছে। রয়টার্স, এফএও।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা