kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ব্যাংকের শেয়ার কেনা বেড়েছে

বেশি দামের শেয়ারে দরপতন ♦ বস্ত্র ও প্রকৌশল খাতে বিক্রির চাপ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ব্যাংকের শেয়ার কেনা বেড়েছে

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক খাতের শেয়ার কেনা বেড়েছে। দীর্ঘদিনের মন্দাবস্থায় ব্যাংক খাতের শেয়ারের বিক্রির চাপ ছিল বেশি, যাতে শেয়ার দাম কমছিল। তবে গতকাল সোমবার এই খাতের কম্পানির শেয়ার কেনার কারণে দাম বেড়েছে।

অন্যদিকে পুঁজিবাজারের দামি শেয়ারের দামে বড় দরপতন হয়েছে। সবচেয়ে বেশি দামের শেয়ারে গতকাল সোমবার বড় দরপতন হয়েছে। বিক্রির চাপ বেশি থাকায় সূচকও কমেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ার দাম হ্রাস পেয়েছে।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৫০ কোটি ৪৯ লাখ টাকা আর সূচক কমেছে ২০ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৩১২ কোটি ৬৩ লাখ টাকা আর সূচক বেড়েছিল ১১ পয়েন্ট।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর শেয়ার কেনার চাপ থাকলেও পরবর্তী সময়ে বিক্রি বেড়ে যায়, ফলে সূচকের পতনে দিনের লেনদেন শেষ হয়। দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে চার হাজার ৭৬১ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ১০ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৬৭৫ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ৯ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৮৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া কম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ২৫০টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টি কম্পানির শেয়ার দাম।

সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২০ কোটি ৯১ লাখ টাকা। আর সূচক কমেছে ৩৫ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৫১ কোটি ৬০ লাখ টাকা। গতকাল সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৫৫টি কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ১৬৩টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯টি কম্পানির শেয়ার দাম।

ব্যাংক খাতে কেনার চাপ : পুঁজিবাজারে শেয়ার বিক্রির চাপের মধ্যেও ব্যাংক খাতের কম্পানিতে বিনিয়োগকারীর শেয়ার কেনা বেড়েছে। আর শেয়ার কেনার চাপ থাকায় এই খাতের ৮০ শতাংশ কম্পানির শেয়ার দাম হ্রাস পেয়েছে। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩০টি কম্পানির মধ্যে ২৪টির শেয়ার দাম বেড়েছে। তিনটি কম্পানির শেয়ার দাম কমলেও অপরিবর্তিত ছিল তিনটি কম্পানির শেয়ার দাম।

বস্ত্র ও প্রকৌশল খাতে বিক্রির চাপ : বস্ত্র ও প্রকৌশল খাতের কম্পানিতে শেয়ার বিক্রির চাপ লক্ষ করা গেছে। বিক্রির চাপ বেশি থাকায় শেয়ার দাম হ্রাস পেয়েছে। ডিএসইর তথ্যানুযায়ী, বস্ত্র খাতে তালিকাভুক্ত ৫৫টি কম্পানির মধ্যে ৫০টির শেয়ার দামই হ্রাস পেয়েছে। অর্থাৎ ৯০ শতাংশ কম্পানির শেয়ার দাম কমেছে। আর দুটি কম্পানির শেয়ার দাম বাড়লেও অপরিবর্তিত ছিল চারটি কম্পানির শেয়ার দাম। আর প্রকৌশল খাতে তালিকাভুক্ত ৩৯টি কম্পানির মধ্যে ৩৫টি কম্পানির শেয়ার দাম হ্রাস পেয়েছে। অর্থাৎ এই খাতের ৮৯ শতাংশ কম্পানির শেয়ার দাম হ্রাস পেয়েছে। তিনটি কম্পানির শেয়ার দাম বাড়লেও কমেছে একটি কম্পানির।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা