kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রদর্শনীর উদ্বোধনীতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

উদ্ভাবনের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উদ্ভাবনের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন

বাংলাদেশ নতুন উদ্ভাবনের প্ল্যাটফর্ম হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে বলে মনে করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ পরিকল্পনা ঘোষণার পর থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ তথ্য-প্রযুক্তি খাতে অগ্রাধিকার দিয়ে বেশ কিছু কাজ করেছে। যে চারটি পিলারের ওপর ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কাজ শুরু হয়েছিল সেটি এখন বাস্তবে পরিণত হয়েছে। তাই বলা যায়, আমরা যে ভিশন ২০২১ নিয়ে এগোচ্ছি সেটি এখন বাস্তব।

গতকাল সোমবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) তিন দিনের ‘ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড ইনোভেশন এক্সপো-২০১৯’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গত ১০ বছরে যেভাবে তথ্য-প্রযুক্তি খাতের অগ্রগতি হয়েছে সেখানে বাংলাদেশে বিগ ডাটা, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, মেশিন লার্নিং, রোবটিকসের মতো বিষয়গুলো খুব সাধামাটা হয়ে গেছে। এগুলো শিক্ষায় এখন তরুণদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। যাতে করে আমরা চতুর্থ শিল্পবিপ্লবে অংশ নিতে প্রস্তুত হচ্ছি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ বলেন, বাংলাদেশের তথ্য-প্রযুক্তি খাতের অগ্রগতির ফলে এখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ বিনিয়োগ করছে। আমরা এই খাতে আরো বিনিয়োগ আশা করি।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তথ্য-প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহেমদ পলক বলেন, বাংলাদেশ এখন আমদানিকারক দেশ থেকে রপ্তানিমুখী দেশে পরিণত হচ্ছে। দেশে এখন স্যামসাং একাই বছরে ১৫ লাখ মোবাইল হ্যান্ডসেট তৈরি করেছে। এ ছাড়া ওয়ালটন, সিম্ফনির মতো প্রতিষ্ঠান ফোন তৈরি করছে। এটি বড় হবে আরো। আরো প্রতিষ্ঠান আসবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা