kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বাধ্য হয়েই বেশি দামে বিক্রি

—হাজি মো. মাজেদ
সাধারণ সম্পাদক, শ্যামবাজার
পেঁয়াজ ব্যবসায়ী সমিতি

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



বাধ্য হয়েই বেশি দামে বিক্রি

ভারত থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করার পরপরই সরবরাহে বড় ঘাটতি তৈরি হতে থাকে। এই ঘাটতি পূরণে মিয়ানমার থেকে যে পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে তার ৪০-৫০ শতাংশ পর্যন্ত পচা বের হচ্ছে। পচা না বের হলে এই পেঁয়াজ পাইকারি ৬০-৬৫ টাকায় বিক্রি করা যেত। এখন এটা ৮০-৮৫ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। এ ছাড়া মিয়ানমারের কাছে খুব বেশি পেঁয়াজও নেই। এ জন্য বেশি আমদানির সুযোগও কম। আমাদের কোনো উপায় নেই। বাধ্য হয়েই বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

তুরস্ক ও মিসর থেকে অনেকেই পেঁয়াজ আমদানি করছে। কিছু পেঁয়াজ এসব দেশ থেকে এসেছে। অনেক এলসি খোলা হয়েছে। এই পেঁয়াজের আমদানি বাড়লে তখন ৬০-৬৫ টাকায় বিক্রি করা যাবে। তখন দাম কমে আসবে। সরবরাহব্যবস্থার এই টানাটানির কারণে পেঁয়াজের দামটা বাড়ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা