kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

৩ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান করা হবে : অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আগামী ১০ বছরে দেশে তিন কোটি মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। এ তিন কোটি মানুষের কর্মসংস্থানের পর আর কোনো মানুষ কর্মের বাইরে থাকবে না। আমাদের শিক্ষাব্যবস্থায় প্রচুর সংস্কার করতে হবে। আমরা যাতে চতুর্থ শিল্পবিপ্লব বাস্তবায়ন করতে পারি আমাদের সেদিকে যেতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে বক্তব্যে শিক্ষকদের উদ্দেশে অর্থমন্ত্রী ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ হ ম মুস্তফা কামাল এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ক্লাসরুমগুলো হবে টেকনোলজিবেসড, টেকনিক্যালি সাউন্ড ব্যবহার করতে হবে। তিনি যুবকদের উদ্দেশে বলেন, এমন সাবজেক্ট নিয়ে লেখাপড়া করো না যা আগামী ১০ বছর পরে কাজে না লাগে।

তিনি শিক্ষার সঙ্গে সম্পৃক্তদের অনুরোধ করে বলেন, বর্তমান শিক্ষাব্যবস্থা সংস্কার করার মাধ্যমে আধুনিক এবং যুগোপযোগী শিক্ষায় শিক্ষিত করে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে হবে। আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, জাতির পিতা মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর স্বপ্ন নিয়ে সারা জীবন কাজ করেছেন।

সম্মেলনে আগামী তিন বছরের জন্য সাবেক সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস ছোবহান ভূঁইয়া হাসাকে সভাপতি এবং মিয়াবাজার কলেজের অধ্যক্ষ রহমত উল্লাহ বাবুলকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু এমপি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রধান জোগানদাতা হলো ছাত্রলীগ। তিনি আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও মহিলা লীগ নেতাদের অনুরোধ করে বলেন, কর্মী নেওয়ার সময় ভালোভাবে দেখে-বুঝে নেবেন—যাতে কোনো ডাকাত, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও মাদকসেবী দলে না নেওয়া হয়।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক রেলমন্ত্রী ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুজিবুল হক বলেন, চৌদ্দগ্রামে জামায়াতের অত্যাচারে আল্লার আরস কেঁপে উঠেছিল। আমরা সাহস হারাইনি। জনগণের সঙ্গে ছিলাম বলে জনগণ আমাদের আবার সুযোগ করে দিয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস ছোবহান ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, আলী হোসেন চেয়ারম্যান, সামছুল আলম মজুমদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌর মেয়র মিজানুর রহমান, জেলা পরিষদ সদস্য ভিপি ফারুক আহমেদ মিয়াজী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এ বি এম এ বাহারসহ অন্যরা। সম্মেলন উপলক্ষে উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১৩টি ইউনিয়ন থেকে ৩১ জন করে কাউন্সিলর এবং ২০০ জন করে ডেলিগেটর আমন্ত্রণ করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা