kalerkantho

সোমবার । ২১ অক্টোবর ২০১৯। ৫ কাতির্ক ১৪২৬। ২১ সফর ১৪৪১                       

তৈরি পোশাক খাতে বিশেষ নগদ সহায়তা

স্থানীয় মূল্য সংযোজনের হার ৩০ শতাংশ হতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তৈরি পোশাক শিল্পের যেসব রপ্তানিকারক কোনো নগদ সহায়তা পান না, তাঁদের জন্য চলতি অর্থবছরে ১ শতাংশ বিশেষ নগদ সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে এ নগদ সহায়তা নিজস্ব কারখানায় উৎপাদিত তৈরি পোশাক রপ্তানির বিপরীতে নিতে পারবেন উদ্যোক্তারা। এ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট রপ্তানিতে স্থানীয় মূল্য সংযোজনের হার ন্যূনতম ৩০ শতাংশ হতে হবে। ইইউ, আমেরিকা ও কানাডায় রপ্তানির বিপরীতে বিশেষায়িত অঞ্চলে অবস্থিত টাইপ-সি প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তারাও নিতে পারবেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগ থেকে এসংক্রান্ত সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

চলতি অর্থবছরে ৩৭টি পণ্য ও খাতে নগদ সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এর মধ্যে নতুনভাবে তৈরি পোশাক খাতে ১ শতাংশ বিশেষ নগদ সহায়তা এবং কনজ্যুমার ইলেকট্রনিকস, ইলেকট্রিক্যাল হোম ও কিচেন অ্যাপ্লায়েন্স পণ্য খাতে ১০ শতাংশ নগদ সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের এক সার্কুলারের মাধ্যমে সরকারের এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। গত অর্থবছরে ৩৫টি পণ্য ও খাতে নগদ সহায়তা দিয়েছিল সরকার। এবারই প্রথমবার তৈরি পোশাক খাতে ১ শতাংশ বিশেষ নগদ সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা আসায় সেটি এ খাতের উদ্যোক্তারা কিভাবে পাবেন সেটি নতুন সার্কুলারের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে। সার্কুলার অনুযায়ী দেশীয় বস্ত্র খাতে শুল্ক বন্ড ও ডিউটি ড্র-ব্যাকের পরিবর্তে বিকল্প নগদ সহায়তা, বস্ত্র খাতের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের অতিরিক্ত সুবিধা, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও ইইউ ছাড়া নতুন পণ্য বা বাজার সম্প্রসারণ সহায়তা, ইউরো অঞ্চলে বস্ত্র খাতে রপ্তানিকারকদের জন্য বিদ্যমান ৪ শতাংশের অতিরিক্ত বিশেষ সহায়তা ২ শতাংশ যাঁরা পেয়ে আসছেন তাঁরা এই ১ শতাংশ বিশেষ নগদ সহায়তা পাবেন না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা