kalerkantho

রবিবার । ২৬ জানুয়ারি ২০২০। ১২ মাঘ ১৪২৬। ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

অর্থনৈতিক মন্দার ঝুঁকিতে ৯০% দেশ

বাণিজ্য ডেস্ক   

১০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অর্থনৈতিক মন্দার ঝুঁকিতে ৯০% দেশ

আইএমএফের নতুন এমডি ক্রিস্টালিনা জর্জিভা

বিশ্ব অর্থনীতিতে সামঞ্জস্যপূর্ণ আর্থিক মন্দা চলছে। শেষ এক দশকের মধ্যে আর্থিক বৃদ্ধির হার এ বছরেই সবচেয়ে কম হবে বলে জানিয়েছেন ইন্টারন্যাশনাল মনিটারি ফান্ডের (আইএমএফ) নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টালিনা জর্জিভা।

তিনি বলেন, ‘বিশ্বের ৯০ শতাংশ দেশজুড়েই চলছে অর্থনৈতিক মন্দা। ভারত কিংবা ব্রাজিলের মতো দেশে সেই অর্থনৈতিক মন্দা বেশি করে চোখে পড়ছে। দুনিয়াজুড়েই আর্থিক বৃদ্ধির হার কমেছে ২০১৯ সালে। আমরা সে রকমই আঁচ করেছিলাম।’

বিশ্বজুড়ে এই আর্থিক মন্দার পেছনে বাণিজ্য সংকট, ব্রেক্সিট ও রাজনৈতিক সংকটের মতো কারণগুলোকেই দায়ী করেছেন জর্জিভা। তাঁর কথায়, বাণিজ্যযুদ্ধে সবাই আসলে হেরে যায়। এ রকম চলতে থাকলে ২০২০ সালের মধ্যে ৭০০ বিলিয়ন ইউএস ডলার ক্ষতি হবে বিশ্ব অর্থনীতিতে, যা সুইজারল্যান্ডের জাতীয় অর্থনীতির সমান।

আর্থিক মন্দা কাটাতে সব দেশের মধ্যে সংহতি দরকার উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আর্থিক বৃদ্ধি এখনো জারি রয়েছে। হার কমেছে, কিন্তু তা বন্ধ হয়ে যায়নি। আমাদের এখনো অনেক দায়িত্ব নিতে হবে।’

গত ছয় বছরের তুলনায় ভারতে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার সবচেয়ে কমে নেমে এসেছে ৫ শতাংশে। এই পরিস্থিতিতে রিজার্ভ ব্যাংক সম্প্রতি সম্ভাব্য বৃদ্ধির হার ৬.৯ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৬.১ শতাংশ করেছে, কিন্তু আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডারের হিসাবে ২০১৯-২০ অর্থবছরে সেই হার নেমে যেতে পারে ০.৩ শতাংশে। কারণ আইএমএফের মতে ‘যা আশা করা গিয়েছিল, তার চেয়েও দুর্বল’ ভারতের অর্থনীতি।

দুই দিন আগেই স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান রজনীশ কুমার বলেছিলেন, মন্দার ধাক্কা কাটিয়ে ভারত ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। উৎসবের মৌসুম পড়তেই অর্থনীতি চাঙ্গা হতে শুরু করেছে। কিন্তু রজনীশ কুমারের সেই তত্ত্ব খারিজ করে সদ্য দায়িত্ব নেওয়া আইএমএফপ্রধান বললেন, মন্দার প্রভাব আরো দীর্ঘস্থায়ী হবে। বিশ্বের ৯০ শতাংশ দেশেই ২০১৯-২০ অর্থবছরে বৃদ্ধির হার আরো কমবে। ভারতে সেই হার হবে আরো বেশি নিম্নগতির।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা