kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

সামিট পাওয়ারের মালিকানার ২২% কিনে নিল জেরা

বাণিজ্য ডেস্ক   

৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সামিট পাওয়ার ইন্টারন্যাশনালের মালিকানার ২২ শতাংশ কিনে নিয়েছে জাপানের অন্যতম বৃহৎ জ্বালানি কম্পানি জেরা। ৩৩ কোটি ডলারে এ ক্রয় চুক্তি হয়েছে বলে গতকাল সোমবার কম্পানি দুটি এক বিবৃতিতে জানায়। টোকিওতে দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হওয়ার চার মাস পর এ ঘোষণা এলো। এর ফলে বাংলাদেশে বড় বড় জ্বালানি অবকাঠামো প্রকল্প গড়ে তোলা যাবে।

বাংলাদেশের সামিট গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান সিঙ্গাপুরভিত্তিক সামিট পাওয়ার ইন্টারন্যাশনাল। অন্যদিকে টোকিও ইলেকট্রিক পাওয়ার ও চুবু ইলেকট্রিক পাওয়ারের যৌথ উদ্যোগের কম্পানি জেরা।

সোমবার জাপানি এই কম্পানির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাংলাদেশের জ্বালানি অবকাঠামো খাতের উন্নয়নে সামিট পাওয়ার ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে গত মে মাসে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছিল। সেই সমঝোতার ভিত্তিতেই তারা সামিটের ব্যবসায় এই বিনিয়োগ করছে।

১৯৯৮ সালে ১১৪ মেগাওয়াট ক্ষমতার স্বতন্ত্র বিদ্যুেকন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে এ খাতে বেসরকারি বিনিয়োগের সূচনা করে সামিট পাওয়ার। বর্তমানে সামিটের কেন্দ্রগুলো থেকে প্রায় ১.৮ গিগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হচ্ছে, যা মোট দেশীয় উৎপাদান সক্ষমতার ১২ শতাংশের সমান।

যুক্তরাষ্ট্রের জেনারেল ইলেকট্রিকের (জিই) সঙ্গে মিলে বর্তমানে নারায়ণগঞ্জের মেঘনাঘাটে ৫৯০ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুেকন্দ্র নির্মাণ করছে সামিট পাওয়ার। আরো বেশ কিছু পরিকল্পনা চূড়ান্ত করার কাজ চলছে, যার বাস্তবায়ন হলে কম্পানির লাভের পরিমাণ উল্লেখযোগ্য হারে বাড়বে বলে আশা প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে সামিট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আজিজ খান বলেন, জেরার সঙ্গে এ অংশীদারি সামিট গ্রুপের বাংলাদেশে ২০২২ সাল নাগাদ তিন বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের যে পরিকল্পনা রয়েছে তার জন্য সহায়ক হবে। জেরা জানায়, বিনিয়োগের জন্য তারা বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেশ হিসেবে বিবেচনা করছে। কারণ এ দেশটির শিল্পায়নের মধ্য দিয়ে যে জোরালো প্রবৃদ্ধি অর্জন করছে তাতে বিদ্যুৎ চাহিদা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা