kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

রপ্তানি প্রবৃদ্ধিতে ছন্দঃপতন

আগস্টে প্রবৃদ্ধি কমেছে প্রায় ১২%
দীর্ঘ ছুটির কারণে নেতিবাচক। —বিজিএমইএ সভাপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রপ্তানি প্রবৃদ্ধিতে ছন্দঃপতন

চলতি অর্থবছরের (২০১৯-২০) শুরুতে দেশের রপ্তানি আয় সম্ভাবনা দিয়ে যাত্রা শুরু করলেও দ্বিতীয় মাস আগস্টে এসেই ধাক্কা খেল। ফলে জুলাই-আগস্ট দুই মাস মিলে গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে রপ্তানি আয় কম হয়েছে ০.৯২ শতাংশ।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) পরিসংখ্যানে দেখা যায়, জুলাই-আগস্ট দুই মাসে রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭৬৮ কোটি ৫০ লাখ ডলার। কিন্তু আয় হয়েছে ৬৭৩ কোটি ২১ লাখ ডলার। এই আয় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১২.৪০ শতাংশ কম। গত অর্থবছরের এ সময় আয় হয়েছিল ৬৭৯ কোটি ৫০ লাখ ডলার।

রপ্তানি আয়ের প্রধান অবলম্বন তৈরি পোশাক খাতেও প্রবৃদ্ধি একেবারে তলানিতে। গত দুই মাসে প্রবৃদ্ধি কমেছে ০.৩৩ শতাংশ। এ সময় লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৬৪৫ কোটি ২০ লাখ ডলার। আয় হয়েছে ৫৭১ কোটি ৬৪ লাখ ডলার। এই আয় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১১.৪০ শতাংশ কম।

নিট পোশাক রপ্তানিতে লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৩১৮ কোটি ৩৭ লাখ ডলার। আর আয় হয়েছে ২৯২ কোটি ডলার। এ আয় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৮.২৮ শতাংশ কম। ওভেন পোশাকে আয় হয়েছে ২৮৯ কোটি ৫৬ লাখ ডলার। এই আয় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১৪.৪৬ শতাংশ কম। এ সময় লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৩২৬ কোটি ৮২ লাখ ডলার।

রপ্তানি আয়ের অন্য বড় খাতগুলোতেও নেতিবাচক প্রবৃদ্ধি হয়েছে। হিমায়িত খাদ্যে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি কম হয়েছে ৫ শতাংশ। কৃষি ও কৃষিজাত পণ্যে প্রবৃদ্ধি কম হয়েছে ২৪.৩৬ শতাংশ। পাট ও পাটজাত পণ্যে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি কম হয়েছে ০.৪৩ শতাংশ।

তবে চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১.৩২ শতাংশ। চামড়াজাত পণ্যে ৩৯.১৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হলেও চামড়ার জুতা রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি কমেছে ৭.২৬ শতাংশ। হালকা প্রকৌশল শিল্পে প্রবৃৃদ্ধি হয়েছে ৩৩.৫ শতাংশ। বাইসাইকেল রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৬৫.৯৭ শতাংশ। এ ছাড়া কেমিক্যাল, প্লাস্টিক ও হস্তশিল্পে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি হয়েছে।

একক মাস হিসেবে আগস্টে রপ্তানি আয় হয়েছে ২৮৪ কোটি ৪৩ লাখ ডলার। এই আয় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২৬.২৭ শতাংশ কম। এ সময় লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৩৮৫ কোটি ৮০ লাখ ডলার। গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে আয় কম হয়েছে ১১.৪৯ শতাংশ। গত অর্থবছরের আগস্টে আয় হয় ৩২১ কোটি ৩৫ লাখ ডলার।

তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক বলেন, জুলাইয়ে রপ্তানি আয়ের প্রবৃদ্ধি ছিল বেশ ইতিবাচক। একই সঙ্গে এ সময় বেশ কিছু পণ্য আগাম রপ্তানি করা হয়। কিন্তু আগস্টে ঈদের একটি বড় ছুটি থাকায় এ সময় রপ্তানি আয় কম হয়েছে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা