kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

রপ্তানি অবদানে স্বীকৃতি পেল ৬৬ প্রতিষ্ঠান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



রপ্তানি অবদানে স্বীকৃতি পেল ৬৬ প্রতিষ্ঠান

জাতীয় রপ্তানিতে টানা ষষ্ঠবারের মতো স্বর্ণপদক পেলেন সার্ভিস ইঞ্জিনের চেয়ারম্যান এ এস এম মহিউদ্দিন মোনেম

দেশের রপ্তানি বাণিজ্যে অবদান রাখায় ২৮ ক্যাটাগরিতে ৬৬ প্রতিষ্ঠানকে ‘জাতীয় রপ্তানি ট্রফি’ তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে রপ্তানি বাণিজ্যে অবদানের জন্য গতকাল রবিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিদের হাতে ট্রফি তুলে দেওয়া হয়। ২৯টি স্বর্ণ, ২১টি রৌপ্য এবং ১৬টি ব্রোঞ্জ ট্রফি প্রদান করে দেশের বাণিজ্য যোদ্ধাদের স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি তোফায়েল আহমেদ বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. মফিজুল ইসলাম এবং এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিমও অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) ভাইস চেয়ারম্যান বেগম ফাতিমা ইসলাম অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন।

যেসব প্রতিষ্ঠান রপ্তানি ট্রফি পেল : তৈরি পোশাক (ওভেন) খাতে স্বর্ণপদক পেয়েছে হা-মীম গ্রুপের প্রতিষ্ঠান রিফাত গার্মেন্ট। একই খাতে ব্রোঞ্জপদকও পায় হা-মীম গ্রুপের দ্যাটস ইট স্পোর্টসওয়্যার। এ খাতে রৌপ্যপদক পেয়েছে এ কে এম নিটওয়্যার।

তৈরি পোশাকের নিটওয়্যার খাতে স্বর্ণপদক পায় স্কয়ার ফ্যাশনস, রৌপ্য ফোর এইচ ফ্যাশনস এবং ডার্ড কম্পোজিট টেক্সটাইলস পায় ব্রোঞ্জপদক। সব ধরনের সুতা রপ্তানি খাতে বাদশা টেক্সটাইলস পায় স্বর্ণপদক। আর কামাল ইয়ার্ন রৌপ্য ও ম্যাকসন স্পিনিং পায় ব্রোঞ্জপদক। টেক্সটাইল ফ্যাব্রিকস খাতে এনভয় টেক্সটাইল স্বর্ণ, ফোর এইচ ডায়িং অ্যান্ড প্রিন্টিং রৌপ্য ও প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। টেরিটাওয়েল খাতে নোমান টেরিটাওয়েল মিলস স্বর্ণপদক পেয়েছে। এ খাতে আর কোনো পদক দেওয়া হয়নি। হিমায়িত খাদ্য খাতে সি-মার্ক (বিডি) স্বর্ণপদক পেয়েছে। আর ব্রাইট সি ফুডস রৌপ্য ও বিডি সি ফুডস পেয়েছে ব্রোঞ্জপদক।

পাটজাত দ্রব্য খাতে আকিজ জুটমিলস পায় স্বর্ণ, জনতা জুটমিলস রৌপ্য আর করিম জুট স্পিনার্স ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। ক্রাস্ট বা ফিনিশড চামড়া খাতে এসএএফ ইন্ডাস্ট্রিজ স্বর্ণপদক পেয়েছে। পিকার্ড বাংলাদেশ চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি খাতে স্বর্ণ ও বিবিজে লেদার গুডস রৌপ্যপদক পেয়েছে। সব ধরনের পাদুকা রপ্তানি খাতে স্বর্ণপদক পেয়েছে বে ফুটওয়্যার। আর এফবি ফুটওয়্যার রৌপ্য ও ফুডবেড ফুটওয়্যার ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে।

কৃষিপণ্য (তামাক ব্যতীত) রপ্তানি খাতে স্বর্ণপদক পেয়েছে মনসুর জেনারেল ট্রেডিং, রৌপ্য পেয়েছে এলিন ফুডস এবং হেরিটেজ এন্টারপ্রাইজ পেয়েছে ব্রোঞ্জপদক। প্রক্রিয়াজাত কৃষিপণ্য রপ্তানিতে প্রাণ অ্যাগ্রো স্বর্ণপদক পেয়েছে। এলিন ফুড পেয়েছে রৌপ্য আর হবিগঞ্জ অ্যাগ্রো ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। ফুল ফলিয়েজ খাতে রাজধানী এন্টারপ্রাইজ স্বর্ণপদক পেয়েছে। হস্তশিল্প পণ্য রপ্তানিতে কারুপণ্য রংপুর লিমিটেড স্বর্ণ, বিডি ক্রিয়েশন রৌপ্য ও ক্লাসিক্যাল হ্যান্ডমেড প্রডাক্ট ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। প্লাস্টিক পণ্য রপ্তানিতে বেঙ্গল প্লাস্টিকস স্বর্ণ, ডিউরেবল প্লাস্টিকস রৌপ্য ও অলপ্লাস্ট ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। সিরামিক খাতে শাইনপুকুর সিরামিকস পেয়েছে স্বর্ণপদক। হালকা প্রকৌশল পণ্য রপ্তানিতে ইউনিগ্লোরি সাইকেল স্বর্ণপদক পেয়েছে। রংপুর মেটাল রৌপ্য ও মেঘনা রাবার পেয়েছে ব্রোঞ্জপদক। ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিকস পণ্য রপ্তানিতে এনার্জিপ্যাক ইঞ্জিনিয়ারিং স্বর্ণ ও বিআরবি কেবল রৌপ্যপদক পেয়েছে। মেরিন সেফটি সিস্টেম ও বিএসআরএম স্টিল অন্যান্য শিল্পজাত পণ্য খাতে স্বর্ণ ও রৌপ্যপদক পেয়েছে। ফার্মাসিউটিক্যালস পণ্য রপ্তানিতে স্বর্ণপদক পেয়েছে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস। এ খাতে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস পেয়েছে রৌপ্যপদক। কম্পিউটার সফটওয়্যার রপ্তানিতে সার্ভিস ইঞ্জিন লিমিটেড স্বর্ণপদক পেয়েছে।



ইপিজেডের শতভাগ বাংলাদেশি মালিকানাধীন তৈরি পোশাক রপ্তানিতে ইউনিভার্সেল জিন্স স্বর্ণ, প্যাসিফিক জিন্স রৌপ্য ও জিন্স ২০০০ ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। ইপিজেডভুক্ত শতভাগ দেশি মালিকানার অন্যান্য পণ্য ও সেবা খাতে ফারদিন অ্যাকসেসরিজ স্বর্ণ, শাশা ডেনিমস রৌপ্য ও আরএম ইন্টারলাইনিংস ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। প্যাকেজিং ও অ্যাকসেসরিজ খাতে মন ট্রিমস স্বর্ণ, ইউনিগ্লোরি পেপার অ্যান্ড প্যাকেজিং রৌপ্য এবং জাবের অ্যান্ড জুবায়ের অ্যাকসেসরিজ ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে।

অন্যান্য প্রাথমিক পণ্য রপ্তানিতে স্বর্ণপদক পেয়েছে অর্কিড ট্রেডিং, রৌপ্য পেয়েছে বাং চুং ট্রেড অ্যান্ড ট্যুরিজম আর বেঙ্গল পলি অ্যান্ড পেপার স্যাক ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য সেবা রপ্তানিতে মীর টেলিকম স্বর্ণপদক পেয়েছে। নারী উদ্যোক্তা ও রপ্তানিকারদের জন্য সংরক্ষিত খাতে মুন্নু সিরামিকস স্বর্ণ ও নিহাও ফুড কম্পানি রৌপ্যপদক পেয়েছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, গত অর্থবছরে ১২ শতাংশ রপ্তানি প্রবৃদ্ধি হয়েছে। ২০২১ সালে ৬০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি লক্ষ্য অর্জনে এটি বাড়াতে হবে। এখন থেকে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি ১৫ শতাংশ অর্জন করতে হবে। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানিতে জোর দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, রপ্তানির এ ধারা অব্যাহত থাকলে ২০২১ সালে রপ্তানি আয় ৬০ বিলিয়ন ডলার অর্জন করা সম্ভব হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা