kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৫ আষাঢ় ১৪২৭। ৯ জুলাই ২০২০। ১৭ জিলকদ ১৪৪১

ফ্রিজ বিক্রির ধুম শেষ সময়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঈদুল আজহায় কোরবানির গোশত সংরক্ষণের চিন্তা সবার মাথায়। তাই ক্রেতারা ছুটছে ফ্রিজের শোরুমে। ফ্রিজের বাজার বেশির ভাগই ওয়ালটনের দখলে থাকায় তাদের বিক্রয়কেন্দ্রগুলোতে লোকসমাগম ও বিক্রির রেকর্ড হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা।

ওয়ালটন ফ্রিজ বিভাগের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মুর্শেদ বলেন, এবার কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে সারা দেশে বাম্পার সেল হচ্ছে। এরই মধ্যে ফ্রিজ বিক্রির নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়ে গেছে। গত কোরবানির ঈদের তুলনায় ৩০ শতাংশ বেশি ফ্রিজ বিক্রি হয়েছে। বার্ষিক বিক্রির লক্ষ্যমাত্রাও ৮০ শতাংশ পূরণ হয়ে গেছে।

রাজধানীসহ চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, বাগেরহাট, বগুড়া, সিলেট, ফেনী, নরসিংদীসহ অন্যান্য অঞ্চলে নিয়োজিত ওয়ালটনের প্লাজা ম্যানেজার, পরিবেশক ও অঞ্চলপ্রধানরা জানান, ঈদের আগে ফ্রিজ বিক্রির উৎসব চলছে। তাঁদের দাবি, ঈদে সারা দেশে ফ্রিজের চাহিদার প্রায় ৮০ শতাংশই ওয়ালটন পূরণ করেছে। দাম সাশ্রয়ী, অসংখ্য মডেল, সহজ কিস্তি সুবিধা, এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টির পাশাপাশি কম্প্রেসরে ১২ বছরের গ্যারান্টি সুবিধা, সর্বোপরি বিশাল সেলস ও সার্ভিস নেটওয়ার্ক থাকায় ফ্রিজ কেনার ক্ষেত্রে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের প্রতি ক্রেতারা আগ্রহী হচ্ছে।

ফেনীর একাডেমি রোড ওয়ালটন প্লাজার ম্যানেজার খালেদ সাইফুল্লাহ জানান, গত কোরবানির ঈদের চেয়ে ফ্রিজের বাজার এবার বেশ চাঙ্গা। তাঁর শোরুমে বিক্রি অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি বলে জানান তিনি।

ওয়ালটনের প্রকৌশলীরা জানান, ওয়ালটন ফ্রিজে ইনভার্টার প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। ফলে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত বিদ্যুৎ সাশ্রয় হচ্ছে। জানা গেছে, এবার ঈদে ১০ লাখ ফ্রিজ বিক্রি করতে যাচ্ছে ওয়ালটন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা