kalerkantho

দাম কমেছে কাঁচা মরিচের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজধানীর খুচরা বাজারগুলোতে কমতে শুরু করেছে কাঁচা মরিচের দাম। বন্যার কারণে ১৫ দিন আগে কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে কেজিপ্রতি ২০০ টাকায় উঠে যায়। দাম কমে এখন প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ১৫০-১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

গতকাল রাজধানীর কয়েকটি খুচরা ও পাইকারি বাজারের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বন্যার কারণে হঠাৎ করেই মরিচের সংকট হয়েছিল। যে কারণে ৬০-৮০ টাকায় বিক্রি হওয়া প্রতি কেজি মরিচ দ্রুতই ২০০ টাকায় উঠে যায়। এ সংকট দূর করতে ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি শুরু হয়। এর প্রভাবে বাজারে দাম কমতে শুরু করেছে বলে জানায় পাইকারি বিক্রেতারা। ফার্মগেটের তেজগাঁও কলেজের সামনের কাঁচাবাজারে বিক্রেতাদের প্রতি ২৫০ গ্রাম কাঁচা মরিচ ৪০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। এক বিক্রেতা ফজলু মিয়া জানান, তিন চার দিন আগে ২৫০ গ্রাম মরিচ ৫০ টাকায় বিক্রি করেছেন। পাইকারি বাজারে দাম কমেছে। তাই খুচরাতেও দাম কমেছে।

গুলশানের শাহজাদপুর কাঁচাবাজারের এক বিক্রেতা তানিম মিয়া বলেন, ‘পাইকারিতে না কমলে আমরা কমাইতে পারি না। পাইকারি বাজারে এখন সব এলসির মরিচ বিক্রি হচ্ছে।’

কারওয়ান বাজারের পাইকারি বিক্রেতাদের প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ১০০-১১০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। পাইকারি বিক্রেতা শরিফুল ইসলাম জানান, বাজারে এখন দুই-তিন রকমের এলসির (আমদানি করা) কাঁচা মরিচ। বিভিন্ন অঞ্চল থেকে খুব বেশি মরিচ আসছে না। তবে আরো প্রায় দুই সপ্তাহ পর থেকে যশোর, কুষ্টিয়া অঞ্চলের মরিচ ওঠা শুরু করবে। তখন দাম আরো কমে আসবে।

কাঁচা মরিচের দাম কমলেও চড়া দামে স্থিতিশীল রয়েছে সবজির বাজার। বেশ চড়া দামেই বিক্রি হচ্ছে এসব সবজি। ৬০-৭০ টাকা কেজি দরে করলা, ৩০-৪০ টাকা কেজি পেঁপে, ৬৫-৭০ টাকায় চিচিঙ্গা, ৪০-৪৫ টাকা কেজি ঢেঁড়স, ১১০-১৩০ টাকা কেজি টমেটো, ৯০-১০০ টাকা কেজি গাজর বিক্রি করতে দেখা গেছে।

মন্তব্য