kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

চার বছর হচ্ছে না যশোর চেম্বারের নির্বাচন

একজন সরকারি কর্মকর্তা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। কবে নির্বাচন হবে তাও পরিষ্কার নয়। এ কারণে একরকম স্থবির হয়ে আছে ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণের অন্যতম এ প্রতিষ্ঠান

ফখরে আলম, যশোর   

৯ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চার বছর হচ্ছে না যশোর চেম্বারের নির্বাচন

যশোর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির কার্যালয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

ঐতিহ্যবাহী জেলা যশোরের চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের নির্বাচন চার বছর ধরে হচ্ছে না। একজন সরকারি কর্মকর্তা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। কবে নির্বাচন হবে তাও পরিষ্কার নয়। যে কারণে একরকম স্থবির হয়ে আছে ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণের অন্যতম এ প্রতিষ্ঠানটি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দ্বিবার্ষিক নির্বাচনের মাধ্যমে ব্যবসায়ীরা যশোর চেম্বারের নেতা নির্বাচন করেন। ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণ ছাড়াও অর্থনৈতিক নানা কর্মকাণ্ডে সংগঠনটি ভূমিকা রাখে। আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য, ঠিকাদারি কাজ ছাড়াও অন্যান্য ব্যাবসায়িক কর্মকাণ্ডে চেম্বার সনদ প্রদান করে। কিন্তু মামলা-মোকদ্দমা আর আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে চার বছর ধরে যশোর চেম্বারের নির্বাচন হচ্ছে না। নির্বাচন না হওয়ার কারণে ব্যবসায়ীরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগও করেছেন। এর পরও নির্বাচনের গেরো কাটছে না।

চেম্বারের সহকারী নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সাধারণ) প্রশাসক হিসেবে যশোর চেম্বারের দায়িত্ব পালন করছেন। চেম্বারের ৯ হাজার ৫০০ জন সদস্য রয়েছেন। এখন ব্যবসাসংক্রান্ত বিভিন্ন সনদ প্রশাসকই দিচ্ছেন। কবে নির্বাচন হবে তা আমি বলতে পারছি না।’

চেম্বারের সর্বশেষ নির্বাচিত সভাপতি মিজানুর রহমান খান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করেছি। এরপর নির্দিষ্ট সময়ে নতুন নির্বাচনের তফসিলও ঘোষণা করি। কিন্তু ব্যবসায়ীদের একটি অংশ মামলা করে দেয়। যে কারণে নির্বাচন বন্ধ হয়ে যায়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে প্রশাসক নিয়োগ দেওয়া হয়। মামলার নিষ্পত্তি হয়েছে। আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বারবার যোগাযোগ করেছি; কিন্তু নতুন করে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হচ্ছে না। ফলে চেম্বারের কর্মকাণ্ড ঝিমিয়ে পড়েছে। ব্যবসায়ীদের স্বার্থে আমরা সহসাই যশোর চেম্বারের নির্বাচন দাবি করছি।’

শহরের বিশিষ্ট প্রবীণ ব্যবসায়ী শেখ গোলাম ফারুক বলেন, ‘ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন যশোর চেম্বার। কিন্তু এই চেম্বারের দীর্ঘদিন নির্বাচন হচ্ছে না। যশোর ব্যাবসায়িক অঞ্চল। যশোরের অর্থনৈতিক দিক দিয়ে গুরুত্ব রয়েছে। বর্তমান সরকার ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য নানা উদ্যোগও নিয়েছে। কিন্তু দীর্ঘদিন নির্বাচন না হওয়ায় ব্যবসায়ীরা অভিভাবকহীনতায় ভুগছেন।’

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে চেম্বারের প্রশাসক যশোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সাধারণ) হুসাইন শওকত বলেন, ‘আমি দেড় বছর ধরে প্রশাসকের দায়িত্ব পালন করছি। জাতীয় নির্বাচনের কারণে চেম্বারের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা না করার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে আমাকে মৌখিক নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। এখন আমরা নতুন করে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার জন্য চিন্তাভাবনা করছি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা