kalerkantho

শনিবার । ১৪ চৈত্র ১৪২৬। ২৮ মার্চ ২০২০। ২ শাবান ১৪৪১

চীনের বাকি সব পণ্যে শুল্ক আরোপের নির্দেশনা ট্রাম্পের

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একটি বাণিজ্য চুক্তিতে পৌঁছার আগে যুক্তরাষ্ট্রকে অতিরিক্ত সব শুল্ক প্রত্যাহার করে নিতে হবে বলে দাবি করেছেন চীনের ভাইস প্রিমিয়ার ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য বিষয়ক প্রধান আলোচক লি হি। সম্প্রতি কোনো ফলাফল ছাড়াই ওয়াশিংটনে শেষ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র-চীন বাণিজ্য আলোচনা।

এদিকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য প্রতিনিধি রবার্ট লিথিজারকে নির্দেশনা দিয়েছেন চীনের বাকি সব পণ্যে অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের প্রক্রিয়া শুরু করার ব্যাপারে। যার পরিমাণ হবে প্রায় ৩০০ বিলিয়ন ডলার। লি বলেন, সম্ভাব্য চুক্তির ধারাগুলো অবশ্যই ভারসাম্যপূর্ণ হতে হবে যাতে দুই দেশেরই ন্যায্য হিস্যা থাকে। দুই দেশ আবারও বেইজিংয়ে বৈঠক করবে আলোচনা অব্যাহত রাখার জন্য। যাতে একটি ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।

গত শুক্রবার আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পর চীনের ২০০ বিলিয়ন ডলার পণ্যে অতিরিক্ত শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর পরপরই দুই দেশের মাঝে নতুন করে বাণিজ্য উদ্বেগ শুরু হয়েছে, যা বিশ্ব অর্থনীতিতেও অস্থিরতার কারণ হয়ে উঠছে। এদিকে এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেন, কয়েক মাসের আলোচনার পর বেইজিং চুক্তি ভেঙে ফেলেছে। ট্রাম্প সতর্ক করে দিয়ে বলেন, চীনকে এখনই যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে একটি চুক্তিতে আসতে হবে, তা না হলে চুক্তি সুদূরপরাহত হবে। তাদের আমার দ্বিতীয় টার্ম ২০২০ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

ট্রাম্প বলেন, দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে আমিই বিজয়ী হতে চলেছি। আমি দ্বিতীয় দফায় বিজয়ী হলে তখন চীনের জন্য একটি চুক্তিতে আসা আরো কঠিন হয়ে যাবে।

যুক্তরাষ্ট্র এ পর্যন্ত চীনের ২৫০ বিলিয়ন ডলার পণ্যে শুল্ক আরোপ করেছে। এর বিপরীতে চীন যুক্তরাষ্ট্রের ১১০ বিলিয়ন ডলার পণ্যে শুল্ক আরোপ করেছে। সিএনএন মানি, এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা