kalerkantho

সোমবার । ২৪ জুন ২০১৯। ১০ আষাঢ় ১৪২৬। ২০ শাওয়াল ১৪৪০

কীর্তিমান নারীদের উইলের সম্মাননা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পঞ্চম ইন্সপায়ারিং উইমেন অ্যাওয়ার্ডের মাধ্যমে দেশের উদ্যমী নারী পেশাজীবীদের সম্মাননা প্রদান করল উইমেন ইন লিডারশিপ (উইল)। অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানটি ‘লা মেরিডিয়ান হোটেল’ ঢাকায় আয়োজন করা হয়। অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের আগে সেখানে দিনব্যাপী উদ্যাপিত হয় চতুর্থ উইমেন লিডারশিপ সামিট। ২০১৪ সাল থেকে উইমেন ইন লিডারশিপের উদ্যোগে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী বক্তব্যে উইমেন ইন লিডারশিপের প্রেসিডেন্ট নাজিয়া আন্দালিব প্রিমা বলেন, ‘নারীদের ইচ্ছা বাস্তবায়নের জন্য তাদের সব বাধা অতিক্রম করতে হবে। স্বাধীনভাবে বাঁচার জন্য তাঁদের অবশ্যই সবল মনের পরিচয় রাখতে হবে।’ ১৪ জন বিজয়ীর মাঝে ছিলেন ১৩ জন নারী এবং ১ জন পুরুষ, যিনি নারীর ক্ষমতায়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছেন। এ ছাড়া, ১২ জন নারীকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

ইন্সপায়ারিং উইমেন ইন টেকনোলজি অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছেন বেসিসের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ফারহানা এ রহমান; ইন্সপায়ারিং উইমেন ইন স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন ঢাকা সিটি ফুটবল ক্লাবের কোচ মিরোনা খাতুন এবং ইন্সপায়ারিং উইমেন ইন আর্ট অ্যান্ড কালচার অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছেন ঢাকা লিট ফেস্টের ডিরেক্টর ও প্রডিউসার সাদাফ সাজ।

লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয় নিজেরা করি-এর কো-অর্ডিনেটর খুশী কবিরকে। ইন্সপায়ারিং উইমেন স্পিরিট অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয় স্পর্শ ব্রেইল প্রকাশনার ফাউন্ডার নাজিয়া জাবিনকে।

ওয়াও-ম্যান ক্যাটাগরিতে মেন্টরস এডুকেশন লিমিটেড এবং মেন্টরস স্টাডি অ্যাবরডের ডিরেক্টর ও সিইও অনিন্দ্য চৌধুরীকে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। ওই ক্যাটাগরিতে নারীর ক্ষমতায়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালনকারী পুরুষদের পুরস্কৃত করা হয়ে থাকে। দিনব্যাপী এ সামিটটি দেশজুড়ে সব নারীর কণ্ঠস্বরকে একত্রিত করে নারী নেতৃত্ব এবং এ সম্পর্কিত বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ আলোচনার জন্য একটি উল্লেখযোগ্য প্ল্যাটফর্ম হিসেবে আবির্ভূত হয়। তরুণ এবং অভিজ্ঞ নারীদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে ভবিষ্যেক কিভাবে নারীদের জন্য আরো সুন্দর করে তোলা যায় সে সম্পর্কে আলোকপাত করা হয়।

মন্তব্য