kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

ক্লিন এনার্জি সামিটের উদ্বোধনীতে অর্থমন্ত্রী

নবায়নযোগ্য জ্বালানির জন্য কাজ করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নবায়নযোগ্য জ্বালানির জন্য কাজ করতে হবে

ফাইল ছবি

জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে পৃথিবীকে রক্ষা করা যাবে না বলে মনে করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, আগের তুলনায় বর্তমানে প্লেনে (আকাশ পথে যাত্রায়) ঝাঁকুনি বেড়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে আগামী ২০২৫ সালের মধ্যে এ ঝাঁকুনি আরো ২৫ শতাংশ বাড়বে। তাই যেকোনো মূল্যে জলবায়ু পরিবর্তনের হার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। গতকাল রাজধানীতে পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থনীতির লক্ষ্যে দুই দিনের ‘বাংলাদেশ ক্লিন এনার্জি সামিট-২০১৯’ উদ্বোধনকালে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ সম্মেলনের আয়োজন করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কম্পানি (ইডকল)।

ইআরডি সচিব ও ইডকল চেয়ারম্যান মনোয়ার আহমেদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি) আবুল কালাম আজাদ, এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ, বিদ্যুৎ ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. আহমাদ কায়কাউস, ইডকলের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর মাহমুদ মালিক প্রমুখ।

মোট ১১টি প্রতিষ্ঠান প্লাটিনাম, গোল্ড ও সিলভার ক্যাটাগরিতে এই সম্মেলনের পৃষ্ঠপোষকতা করছে। বসুন্ধরা গ্রুপ ও কনফিডেন্স গ্রুপ প্লাটিনাম, বাংলাট্রাক, ম্যাক্স, রিজেন্ট এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার, কর্ণফুলী পাওয়ার, শক্তি পাম্প, গোল্ড স্পন্সর এবং সিটি গ্রুপ, পারটেক্স পেট্রো, সেভেন রিংস সিমেন্ট ও সামিট করপোরেশন সিলভার স্পন্সর হিসেবে আছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সারা বিশ্ব এরই মধ্যে ২৬ শতাংশ উপকূলীয় জমি হারিয়েছে। বিশ্বব্যাপী আমরা প্রতিবছর দুই হাজার হেক্টর জমি হারাচ্ছি। তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে খাবার পানি এতটাই অপ্রতুল হয়ে গেছে যে তাইওয়ানে রেশন হিসেবে পানি দেওয়া হচ্ছে। ব্যক্তিগত পানির সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে কিছু কিছু দেশে। মন্ত্রী বলেন, ‘মোট এনার্জির ৮০ শতাংশ আসে জীবাশ্ম থেকে, যা পরিবেশের ক্ষতি করছে। পুরো বিশ্বের মানুষের ওপর এর প্রভাব পড়ছে। গ্রিন এনার্জির জন্য আমাদের কাজ করতে হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা