kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

পুঁজিবাজারে অর্থসংগ্রহ সহজ করার প্রস্তাব

দীর্ঘসূত্রতায় আসছে না ভালো কম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



দীর্ঘসূত্রতায় আসছে না ভালো কম্পানি

সেমিনারে বক্তব্য দেন বিএসইসি চেয়ারম্যান খায়রুল হোসেন

কম্পানি লোকসানে পড়লেও ব্যাংকঋণে সুদ দিতেই হয়। কিন্তু পুঁজিবাজার থেকে মূলধন নিতে সুদ দিতে হয় না। কেবল মুনাফার একটি অংশ লভ্যাংশ হিসেবে দিতে হয়। কম্পানি লোকসান করলে লভ্যাংশও দিতে হয় না। তালিকাভুক্ত হলে করপোরেট করেও বড় ছাড় পায় কম্পানি। পুঁজিবাজারে মূলধন সংগ্রহ লাভজনক হলেও ব্যাংকের দিকে ছুটছে সবাই। তাই পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহ উৎসাহিত করতে আইপিওর দীর্ঘসূত্রতা কমানোসহ বিভিন্ন প্রণোদনা দেওয়ার সুপারিশ করেছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

রাজধানীর ফার্স হোটেলে গতকাল মঙ্গলবার ‘দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নে শেয়ারবাজারের গুরুত্ব’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। কম্পানি আসার লাভজনক দিক তুলে ধরে পুঁজিবাজারে ভালো কম্পানিকে তালিকাভুক্ত করার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন বক্তারা। কোনো কোনো আইনগত জটিলতা হ্রাস কিংবা ছাড় দিয়েও তালিকাভুক্তির বিষয়ে পরামর্শ দেন তাঁরা।

ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিবিএ) ও অনলাইন নিউজপোর্টাল বিজনেস আওয়ার টোয়েন্টিফোর ডটকম এই সেমিনারের আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন ডিবিএ সভাপতি শাকিল রিজভী। প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান খায়রুল হোসেন। এতে বক্তব্য দেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক অর্থ উপদেষ্টা ও বিএসইসির সাবেক চেয়ারম্যান এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম ও বিএসইসির সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ সিদ্দিকী।

এ ছাড়া প্যানেল আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সাবেক সভাপতি মো. ছায়েদুর রহমান ও ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্ট ফোরামের (সিএমজেএফ) সভাপতি হাসান ইমাম রুবেল। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ।

মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, ‘দেশে সুস্থ পুঁজিবাজার থাকলে বিদেশি বিনিয়োগ আসতে পারে। এ বিনিয়োগ কাঙ্ক্ষিত পর্যায়ে থাকলে তা পুঁজিবাজারে গতিসঞ্চারে সহায়ক হবে। ভালো কম্পানি কেন আসতে চায় না, সেই প্রতিবন্ধকতাও কাটাতে হবে। তালিকাভুক্তিতে আইনি বাধ্যবাধকতা নেই, সে ক্ষেত্রে সমঝোতাই একমাত্র পন্থা। নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে ভালো কম্পানি আনতে হবে। এ জন্য নিরবচ্ছিন্ন প্রচেষ্টা চালাতে হবে।’

ফারুক আহমেদ সিদ্দিকী বলেন, ‘অর্থের প্রয়োজনে কোনো উদ্যোক্তা শেয়ারবাজার থেকে সংগ্রহের জন্য দুই-তিন বছর বসে থাকবে না। তারা যেখানে অর্থ পাবে, সেখানেই চলে যাবে। তাই শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ প্রক্রিয়া সহজ এবং স্বল্প সময়ে করার জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘তালিকাভুক্ত হলে সব থেকে বড় সুবিধা পাওয়া যায় করপোরেট করে। এত বড় সুবিধা পাওয়ার পরও কম্পানিগুলো এ সুযোগ নিচ্ছে না। এর কারণ হলো আইন থাকলেও তার বাস্তবায়ন নেই। ৩৫ শতাংশ করপোরেট করের কথা বলা আছে, কিন্তু এটা সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে কি না, তা কেউ খতিয়ে দেখে না। পুঁজিবাজার ভালো করতে হলে ভালো কম্পানির বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, গত আট-দশ বছরে হাতে গোনা দু-একটি ছাড়া ভালো কম্পানি পুঁজিবাজারে আসেনি। যত দিন দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়া যাবে, তত দিন মানুষ ব্যাংকে ছুটবে।

খায়রুল হোসেন বলেন, ‘পুঁজিবাজারসংশ্লিষ্ট সবাইকে সঙ্গে নিয়ে এবং অর্থমন্ত্রী ও সাবেক অর্থমন্ত্রী প্রয়োজনে প্রধানমন্ত্রীকে অন্তর্ভুক্ত করে দীর্ঘস্থায়ী স্থিতিশীল পুঁজিবাজার গড়ে তুলতে কাজ করছি। আইন মেনেই আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়। কোনো কম্পানি শেয়ার দাম ধরে রাখতে পারছে, আবার কেউ পারছে না। এ ক্ষেত্রে আমাদের কিছু করার থাকে না। আইপিওর আগে আমরা কম্পানি পরিদর্শন করি না, পরিদর্শন করে স্টক এক্সচেঞ্জ ও মার্চেন্ট ব্যাংক। আইপিও অনুমোদনে আবেদন করা কম্পানির কাছ ব্যাখ্যা চাওয়া হলেও অনেক কম্পানি ৯ মাস পেরিয়ে গেলেও জবাব দেয় না। এতে কম্পানির আইপিও অনুমোদন আটকে যাচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে আইপিও আবেদন বাতিল করা হচ্ছে।’ আইন পরিপালনের মাধ্যমে আবদেন করলে দ্রুতই অনুমোদন পাবে বলেও জানান তিনি।

শাকিল রিজভী বলেন, ‘ভালো কম্পানি পুঁজিবাজারে আনার জন্য দুই-তিন বছরের একটি পরিকল্পনা নিতে হবে। ভালো কম্পানি আনতে যে সুবিধা দেওয়া যায় তা দিতে হবে। তালিকাভুক্তির ফি প্রথম দুই বছর ছাড় দেওয়া যায় কি না দেখতে হবে। পাশাপাশি আইপিওর দীর্ঘসূত্রতা কমানোর জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা