kalerkantho

শনিবার । ১৮ জানুয়ারি ২০২০। ৪ মাঘ ১৪২৬। ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

রিহ্যাব মেলা শেষে দাবি ব্যবসায়ীদের

বিপুল দর্শনার্থীর আগমনে সফল আবাসন মেলা

শাখাওয়াত হোসাইন   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিপুল দর্শনার্থীর আগমনে সফল আবাসন মেলা

মেলার শেষ সময়ে দর্শনার্থীর ভিড় তুলনামূলক বেশি দেখা গেছে

বিপুল দর্শনার্থীর আগমন আর কম্পানিগুলোর মূল্যছাড়ে উৎসবমুখর হয়ে ওঠা রিহ্যাব আবাসন মেলার পর্দা নেমেছে গতকাল রবিবার। শেষ সময়ের ব্যস্ততার পর রাত ৯টায় র‌্যাফল ড্রয়ের মাধ্যমে ইতি টানা হয়েছে পাঁচ দিনের এ মেলার। দর্শনার্থী সমাগম এবং বুকিংয়ের দিক বিবেচনায় এবারের রিহ্যাব মেলা সফল ও ফলপ্রসূ হয়েছে বলে দাবি করেছেন মেলায় অংশ নেওয়া ব্যবসায়ী এবং আয়োজকরা।

জানা গেছে, বুধবার থেকে শনিবার পর্যন্ত মেলায় এসেছে ২০ হাজারেও বেশি ক্রেতা ও দর্শনার্থী। মেলার শেষ দিন গতকালও দর্শনার্থীর উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। ব্যবসায়ীরা জানান, টানা পাঁচ দিনই ফ্ল্যাট ও প্লটের আবাসন প্রকল্প সম্পর্কে তথ্য নিয়েছেন দর্শনার্থীরা। পছন্দের প্রকল্পে বুকিংও দিয়েছে অনেকে। মেলায় নিবন্ধন করার পর অনেক ক্রেতা প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখে। ফ্ল্যাট ও প্লটের দাম-দর ঠিক করতে করপোরেট অফিসেও যোগাযোগ করেছে ক্রেতারা।

মেলায় স্টল দেওয়া ডম-ইনোর এক্সিকিউটিভ মো. বায়েজিদ হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রতিদিন গড়ে ৫০০ থেকে ৫৫০ জন দর্শনার্থী স্টলে এসেছে। প্রতিদিন এক শর বেশি দর্শনার্থী খাতায় নিবন্ধন করেছে। উপস্থিতি বিবেচনায় প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য পূরণ হয়েছে।’

নির্মাণপণ্য ব্যবসায়ীরা জানান, মেলায় ফ্ল্যাট বা প্লট বুকিং দিতে অনেক ব্যবসায়ী এলেও নির্মাণপণ্য বুকিং প্রতিবারই কম হয়ে থাকে। ব্র্যান্ডিংয়ে নির্মাণপণ্যের ব্যবসায়ীরা স্টল দেন। মেলায় আসা দর্শনার্থীদের ৩০ থেকে ৮০ শতাংশ পরবর্তী সময় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ব্যবসা করলে—অংশগ্রহণ ফলপ্রসূ হয়েছে বলে বিবেচনা করা হয়। তবে দর্শনার্থীদের উপস্থিতি বেশ আশাব্যঞ্জক।

এস কে গ্রুপ মাল্টিন্যাশনালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মো. কাউসার বলেন, ‘দ্বিতীয়বারের মতো রিহ্যাব মেলায় অংশ নিয়েছি আমরা। প্রথমবারের চেয়ে এবার দর্শনার্থীর উপস্থিতি অনেক বেশি। মেলায় অংশ নেওয়া সফল কি না তা বলা যাবে আরো কিছুদিন পর।’

আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও ব্যাংকের মতে, আবাসন খাতের ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের ঋণসুবিধা সম্পর্কে অবগত করতে স্টল দেওয়া হয়েছে রিহ্যাব মেলায়। দর্শনার্থীরা নিবন্ধন করলে পরবর্তী সময় ব্যাংক থেকে যোগাযোগ করা হয়। এবারের রিহ্যাব মেলায় উল্লেখযোগ্যসংখ্যক ক্রেতা নিবন্ধন করেছে।

ইস্টার্ন ব্যাংকের অ্যাসোসিয়েট রিলেশনশিপ ম্যানেজার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘বুধবার থেকে মেলা শুরু হলেও শুক্র, শনি এবং রবিবার দর্শনার্থীদের উপস্থিতি ছিল খুব ভালো। ব্যাংকের ঋণ দেওয়ার শর্ত, প্রক্রিয়া এবং সুদের হার সম্পর্কে তথ্য নিয়েছে। এখন সরাসরি ব্যাংকের শাখায় গিয়ে ঋণের ব্যাপারে চূড়ান্ত আলোচনা করতে পারবে গ্রাহকরা।’

আয়োজকদের দাবি, আবাসন মেলার মাধ্যমে ক্রেতা এবং ব্যবসায়ীদের মধ্যে যোগসূত্র তৈরি হয়। ক্রেতা বা দর্শনার্থীদের উপস্থিতি, মেলায় স্টল নেওয়া আবাসন ব্যবসায়ী এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সন্তুষ্টি বিবেচনায় এবারের মেলা অত্যন্ত সুফল হয়েছে।

রিহ্যাবের সভাপতি আলমগীর শামসুল আলামিন কাজল বলেন, ‘সব দিক বিবেচনায় এবারের মেলা অত্যন্ত ইতিবাচক। প্রতিদিনই ব্যাপক ক্রেতা ও দর্শনার্থীর সমাগম ছিল। আবাসন ব্যবসায়ী, নির্মাণসামগ্রী উৎপাদন ও সরবরাহকারী এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বাইরে এবার অনলাইন সেবা প্রদানকারী বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে মেলায়।’

তিনি বলেন, মেলায় অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানের সব ধরনের অনুমতি থাকার পরই মেলায় প্রদর্শনের সুযোগ দেওয়া হয়। তাই রিহ্যাব মেলা থেকে ক্রয় করলে প্রতারণার শিকার হওয়ার সুযোগ নেই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা