kalerkantho

বাণিজ্য মেলা

সম্মাননা পাবেন ১০ ভ্যাটদাতা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাসব্যাপী বাণিজ্য মেলা শেষে ঢাকা পশ্চিম ভ্যাট কর্তৃপক্ষ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ভ্যাট সংগ্রহ করেছে। হাতিল ও ওয়ালটনসহ ১০টি প্রতিষ্ঠানকে সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী হিসেবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানগুলোকে পুরস্কৃত করা হবে।

গতকাল রবিবার বিভিন্ন স্টল থেকে সংগৃহীত ভ্যাটের চালান যাচাই করে দেখা যায়, মোট ভ্যাটের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৭.০১ কোটি টাকা। এই সংগ্রহ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এক কোটি টাকা বেশি। গতকাল সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের সঙ্গে ট্রেজারি চালান যাচাই শেষে এই তথ্য পাওয়া যায়। ঢাকা পশ্চিমের ভ্যাট কমিশনার ড. মইনুল খান কালের কণ্ঠকে এসব তথ্য জানান।

এ কমিশনারেট থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, মেলার শেষ দিনেই এই আহরণ হয়েছে প্রায় এক কোটি টাকা। সাধারণত মেলার অন্যান্য দিনে গড়ে প্রায় ১০-১২ লাখ টাকার ভ্যাট আদায় হয়েছে। মেলার শেষ সপ্তাহে ঢাকা পশ্চিম কমিশনারেট মেলায় অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিশেষ তৎপরতা চালু করে। এতে ভ্যাট সংগ্রহে ইতিবাচক প্রভাব পড়ে। ঢাকা পশ্চিম ভ্যাট কর্তৃপক্ষ জানুয়ারি ২৮ থেকে তিনটি দল গঠন করে এই তদারকি করে আসছে। গত বছর ২০১৮ সালে বাণিজ্য মেলা থেকে ভ্যাট আহরণের মোট পরিমাণ ছিল প্রায় পাঁচ কোটি টাকা। এ বছরের মেলায় ছয় কোটি টাকার ভ্যাট সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়।

মেলায় সর্বোচ্চ রাজস্ব প্রদানকারী ১০টি প্রতিষ্ঠান হলো : হাতিল কমপ্লেক্স (৯৯.৪৪ লাখ টাকা), ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ (৪২.১২ লাখ টাকা), এসকোয়্যার ইলেকট্রনিকস (৩৪.৯০ লাখ টাকা), র্যাংগস ইলেকট্রনিকস (২৭.৪২ লাখ টাকা), বাটারফ্লাই মার্কেটিং (২৩.১০ লাখ টাকা), আরএফএল ইলেকট্রনিকস (২১.৫৯ লাখ টাকা), ফেয়ার ইলেকট্রনিকস (১৮.৮৫ লাখ টাকা), ডিউরেবল প্লাস্টিক (১৭.২১ লাখ টাকা), নাভানা ফার্নিচার (১৬.৫২ লাখ টাকা), রংপুর মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ (১৫.৮৬ লাখ টাকা)। ঢাকা পশ্চিম ভ্যাট এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই সম্মাননা প্রদান করবে।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা