kalerkantho

সোমবার । ২৬ আগস্ট ২০১৯। ১১ ভাদ্র ১৪২৬। ২৪ জিলহজ ১৪৪০

দূষণ ছড়াচ্ছে সাভার চামড়া শিল্প নগরী

ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস মন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দূষণ ছড়াচ্ছে সাভার চামড়া শিল্প নগরী

রাজধানীর হাজারীবাগ থেকে চামড়া শিল্প নগরী সাভারের হরিণধরায় নেওয়ার পর থেকে স্থানীয়দের জীবনযাত্রায় ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞ ও স্থানীয় বাসিন্দারা। সাভার চামড়া শিল্প নগরীর বর্জ্য কৃষিজমি ধ্বংস করে দিচ্ছে। শীতকালীন সবজি কাঙ্ক্ষিত উৎপাদন হচ্ছে না। টিনের চালা লাল হয়ে যাচ্ছে। গরুর খাবারে সমস্যা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগারের কাজ শেষ না হওয়ায় বর্জ্য গিয়ে পড়ছে ধলেশ্বরী নদীতে। এতে নদীও মারাত্মক দূষণের শিকার হচ্ছে।

গতকাল রবিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট : জলবায়ু পরিবর্তন ও এর প্রভাব মোকাবেলায় জরুরি কর্মব্যবস্থা গ্রহণ’ শিরোনামের ওই সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন বলেন, পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা গ্রহণ করা হবে। সাভারের ট্যানারিতে যাতে স্থানীয়দের কোনো ক্ষয়ক্ষতি না হয়, আমরা জরুরি ভিত্তিতে সে ব্যবস্থা গ্রহণ করব। তিনি বলেন, উন্নয়নের পাশাপাশি আমাদের পরিবেশের প্রতিও লক্ষ রাখা জরুরি। পরিবেশ নষ্ট করে কোনো শিল্পপ্রতিষ্ঠান চলতে পারবে না। নদী-খাল পুনরুদ্ধার করা হবে। এর মধ্যে কার্যক্রম শুরু হয়ে গেছে। কাজেই সবাইকে অনুরোধ করব যাতে পরিবেশের বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলো নিজের কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখে।

‘গণমানুষের কণ্ঠস্বর : বাংলাদেশে ২০৩০ টেকসই উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন জোরদারকরণ’ প্ল্যাটফর্ম কর্তৃক আয়োজিত সেমিনারে আলোচনার বিষয় ছিল ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট : জলবায়ু পরিবর্তন ও এর প্রভাব মোকাবেলায় জরুরি কর্মব্যবস্থা গ্রহণ’। পিকেএসএফের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. সুলতান আহমেদ। স্বাগত বক্তব্য দেন পিকেএসএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুল করিম। প্যানেল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সাবেক পরিচালক ড. এম আসাদুজ্জামান।

জলবায়ু পরিবর্তনের অভিঘাত মোকাবেলায় এখনই উদ্যোগ নেওয়া না হলে অর্থনীতি মুখ থুবড়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন পিকেএসএফ চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। তিনি বলেন, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনের জন্য সুপরিকল্পিত উদ্যোগ গ্রহণ, অভ্যন্তরীণ সম্পদের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত ও স্থানীয় পর্যায়ে তা সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে।

পিকেএসএফ এমডি আবদুল করিম বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নে সরকারের সহায়ক ভূমিকা পালন করছে পিকেএসএফ।

 

মন্তব্য