kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০২২ । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সবযন্ত্রে ইন্টারনেট প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রাণী বীমা

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রাণীর বীমা সুবিধা দিতে সূর্যমুখী ‘প্রাণীসেবা’ নামে একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেছে সূর্যমুখী লিমিটেড এবং ফিনিক্স ইনস্যুরেন্স। তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে সবযন্ত্রে ইন্টারনেট এবং মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে প্রাণীর বীমা ছাড়াও জাত উন্নয়ন, সফল প্রজনন, তথ্য সংরক্ষণ, গবাদি প্রাণী পালন ব্যবস্থাপনা, প্রাথমিক চিকিৎসাসেবা প্রদান করা যাবে। ইউকে এইডের সমর্থনে বিজনেস ফিন্যান্স ফর পোর ইন বাংলাদেশ শীর্ষক সহযোগিতায় এই কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

প্রযুক্তিনির্ভর এই প্রাণী বীমা প্ল্যাটফর্ম সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে গতকাল বুধবার ফার্মগেটে কৃষিবিদ মিলনায়তনে প্রাণী বীমায় রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি শনাক্তকরণ প্রযুক্তির প্রয়োগ শীর্ষক একটি সেমিনারের আয়োজন করে সূর্যমুখী লিমিটেড এবং ফিনিক্স ইনস্যুরেন্স।

বিজ্ঞাপন

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. নাথু রাম সরকার। তিনি বলেন, ‘এই প্রযুক্তি বাংলাদেশের জন্য জরুরি এবং লাগসই। বাংলাদেশ সরকার এবং প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট সূর্যমুখীর এই প্রযুক্তিকে আগ্রহের সঙ্গে দেখবে। ’

সেমিনারে সূর্যমুখীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফিদা হক বলেন, ‘সূর্যমুখী প্রাণীসেবা প্ল্যাটফর্মের অংশ হিসেবে একটি বায়োসেন্সর গবাদি প্রাণীর পাকস্থলীতে স্থাপন করানো হয়। এই বায়োসেন্সর বা বোলাস প্রাণীর পাকস্থলী থেকে রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি শনাক্তকরণ প্রক্রিয়ায় তথ্য তৈরি এবং ক্লাউডে প্রেরণ করে। ’ নতুন প্রযুক্তির কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া না থাকা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, স্ম্যাক্সটেক বোলাস গবাদি প্রাণীর পাকস্থলীতে অন্তত পাঁচ বছর কার্যকর থাকে এবং গবাদি প্রাণীর দেহে কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে না।



সাতদিনের সেরা