kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

উদ্যোক্তা

চাকরি ছেড়ে গাড়ল খামারি মেহেদী

জামাল হোসেন, বেনাপোল (যশোর)   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাকরি ছেড়ে গাড়ল খামারি মেহেদী

মেহেদী হাসান

কম্পিউটার প্রকৌশল বিজ্ঞানে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ শেষে ঢাকায় একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি শুরু করেন মেহেদী হাসান। কিছুদিন চাকরি ছেড়ে উদ্যোক্তা হওয়ার ইচ্ছায় ফিরে যান বেনাপোলে নিজের বাড়িতে। এরপর সেখানে গড়ে তোলেন গাড়লের খামার। নিজ গ্রামে এসে বিদেশি প্রজাতির গাড়ল চাষ শুরু করেন। শুরুতে দুটি গাড়লের বাচ্চা ১৫ হাজার টাকায় কিনে খামার শুরু করেন তিনি। এরপর পর্যায়ক্রমে আরো ৩৫টি দেশি ক্রস গাড়ল ক্রয় করেন। বর্তমান তাঁর খামারে রয়েছে ৬০টি গাড়ল। তাঁর প্রথম কেনা একটি গাড়ল চার মাস লালন-পালনের পর ১৭ হাজার টাকায় বিক্রি করা সম্ভব হয়েছে।

তিনি জানান, গাড়ল মূলত সুন্দরবন অঞ্চলের একটি স্বীকৃত ভেড়ার জাত। এগুলো দেখতে আমাদের দেশি ভেড়ার মতো এবং আকারে দেশি ভেড়ার থেকে কিছুটা বড়। এগুলো নোনা পানির অঞ্চলে সহজে মানিয়ে নেয় এবং খুব শক্ত প্রকৃতির। আর লেজ লম্বা আকারে বড় ভেড়াগুলো আসলে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নাগপুর অঞ্চলের ছোটানাগপুরি জাতের ভেড়ার সঙ্গে আমাদের দেশি ভেড়ার ক্রস ব্রিড। এই ক্রস ব্রিডের নামকরণ করা হয় ‘গাড়ল’। ভালো যত্ন পেলে পিওর গাড়ল সাত-আট মাস পরপর একটি করে বাচ্চা দেয়। বাণিজ্যিকভাবে শুধু পিওর গাড়ল পালন করা কোনো সময় লাভজনক হবে না। অল্প কিছু পিওর গাড়ল আর বেশিসংখ্যক ভালো মানের ক্রস গাড়ল দিয়ে খামার করলে লাভবান হওয়া যাবে।

রাজশাহী অঞ্চলের খামারিরা প্রথম এই সংকরায়ণ ঘটালেও মেহেরপুর-কুষ্টিয়া অঞ্চলে এর ব্যাপকতা দেখা যায়। তা ছাড়া বাণিজ্যিকভাবে দেশের বিভিন্ন জেলায় ছোট বড় কিছু কিছু গাড়লের খামার গড়ে উঠছে। গাড়লের মাংস অত্যন্ত সুস্বাদু এবং স্বাস্থ্যকর। গরু-ছাগলের মাংসে যেসব ক্ষতিকর দিক রয়েছে গাড়লের মাংস সেগুলো থেকে মুক্ত। ভেড়া খুব ভালো অনুসারী অর্থাৎ পালের প্রথম ভেড়া যেদিকে যাবে সেদিকে পালের সব ভেড়া অনুসরণ করবে। কাজেই গাড়ল ভেড়া পালন অনেক সহজ।

মেহেদী জানান, আগামী এক বছরে তাঁর খামারে দুই থেকে তিন শ গাড়ল উৎপাদন হবে। তার খামারে সে এবং তাঁর বাড়ির লোক বাদে বেতনভুক্ত দুজন লোক কাজ করে। গাড়লের সংখ্যা বেশি হলে লোকবলও বৃদ্ধি করা হবে। যারা শিক্ষিত হয়ে চাকরি না পেয়ে হতাশায় ভুগছে তারা সহজে গাড়লের খামার করে স্বাবলম্বী হতে পারেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা