kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

বৈঠকে এনবিআর চেয়ারম্যান

রাজস্ব লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হলে ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজস্ব লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হলে ব্যবস্থা

বর্তমানে দেশে স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিবেশ বিরাজ করছে। ব্যবসায়ীরা ভালোভাবে ব্যবসা করতে পারছে। তাদের পক্ষে নিয়মিত কর পরিশোধ করা সম্ভব। এখন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কর্মকর্তাদের উচিত তাদের কাছ থেকে হিসাবমতো রাজস্ব আদায় করা। তবে রাজস্ব আদায় করতে গিয়ে কাউকে হয়রানি করা যাবে না। কোনো দুর্নীতি করা যাবে না।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় মূল দপ্তরে এনবিআরের মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে দিনব্যাপী রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া। চলতি অর্থবছরে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সামনে রেখে এ বৈঠক করা হয়। এ সময় এনবিআরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের স্পষ্ট জানিয়ে দেন, প্রত্যেক মাসের জন্য প্রত্যেক দপ্তরের রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যর্থতা মেনে নেওয়া হবে না। তিনি জানিয়ে দেন, চলতি অর্থবছরের আগামী ছয় মাসের যেকোনো এক মাসের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে কোনো রাজস্ব কর্মকর্তা ব্যর্থ হলে তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দ্বিতীয়বার তাঁকে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে কাজ করার সুযোগ দেওয়া হবে না। এ ক্ষেত্রে কোনো ব্যাখ্যা গ্রহণ করা হবে না।

বৈঠকে চলতি অর্থবছরের গত ছয় মাসে ২০ হাজার কোটি টাকার বেশি রাজস্ব ঘাটতি কেন হয়েছে তার ব্যাখা চান এনবিআর চেয়ারম্যান। উপস্থিত কর্মকর্তারা জানান, নির্বাচন সামনে রেখে ব্যবসা-বাণিজ্য শ্লথ ছিল, তাই রাজস্ব পরিশোধ করতে পারেনি অনেকে। তবে এসব ব্যক্তির কাছ থেকে আগামীতে সঠিক হিসাবে রাজস্ব আদায় সম্ভব হবে। উপস্থিত কর্মকর্তারা রাজস্ব আদায়ে করদাতাদের ঘরের দুয়ারে পৌঁছে যাবেন বলে অঙ্গীকার করেন। বৈঠকে নিয়মিত আদায়ের সঙ্গে বকেয়া আদায়ে জোর দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি আইনে বকেয়া আদায়ে কৌশল গ্রহণে ব্যবসায়ী নেতাদের সহায়তা নিতে বলা হয়।

মন্তব্য