kalerkantho

পুঁজিবাজারে মূল্য সংশোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুঁজিবাজারে মূল্য সংশোধন

মুনাফা তুলে নিতে শেয়ার বিক্রির চাপে দেশের পুঁজিবাজার সংশোধন হয়েছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস গতকাল বৃহস্পতিবার দেশের দুই পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্যসূচক হ্রাসের পাশাপাশি লেনদেনও হ্রাস পেয়েছে। একই সঙ্গে বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ার দামও হ্রাস পেয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৮৯৭ কোটি ৫৭ লাখ টাকা আর সূচক কমেছে ১ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ২৫ কোটি ৭৩ লাখ টাকা আর সূচক বেড়েছিল প্রায় ২৮ পয়েন্ট। সেই হিসাবে সূচক ও লেনদেন উভয়ই নিম্নমুখী। বাজার পর্যালোচনায় জানা যায়, লেনদেন শুরুর পর সূচক ঊর্ধ্বমুখী হলেও পরে হ্রাস পেয়েছে। দিনভর সূচকের হ্রাস বৃদ্ধির মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ৭৯৭ পয়েন্ট। ডিএসই শরিয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ৩১৮ পয়েন্ট ও ডিএসই-৩০ সূচক ০.৬ পয়েন্ট বেড়ে দুই হাজার ১১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

আইডিএলসির বাজার পর্যালোচনা বলছে, ডিএসইর লেনদেন কমেছে ১২.৫ শতাংশ। ব্যাংক খাতের কম্পানিতে পতন ঘটলেও টেলিকম, এনার্জি ও ফার্মাসিউটিক্যাল খাতের কম্পানির শেয়ার দাম বেড়েছে। ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে জেএমআই সিরিঞ্জের। কম্পানিটির লেনদেন হয়েছে ২৬ কোটি ৯১ লাখ টাকা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বিবিএস কেবলসের লেনদেন হয়েছে ২৬ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। তৃতীয় স্থানে থাকা অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের লেনদেন হয়েছে ১৮ কোটি ৮১ লাখ টাকা। অন্য শীর্ষ কম্পানিগুলো হলো শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, অ্যাকটিভ ফাইন, শাহজীবাজার পাওয়ার, ব্র্যাক ব্যাংক, নাহি অ্যালুমিনিয়াম ও সিঙ্গার বিডি।

সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৩ কোটি দুই লাখ টাকা। আর সূচক কমেছে প্রায় ৯ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৬২ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। গতকাল লেনদেন হওয়া ২৬৪টি কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৭টির, কমেছে ১৪০টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৭টি কম্পানির শেয়ার দাম।

 

মন্তব্য