kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৭ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৭ সফর ১৪৪১       

চট্টগ্রামে তিন দিনের এসএমই মেলা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামে তিন দিনের আন্তর্জাতিক ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) মেলা গতকাল শনিবার থেকে শুরু হয়েছে। নগরীর আগ্রাবাদে দেশের একমাত্র ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে এই মেলার উদ্বোধন করেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন।

উদ্বোধনের পর প্রধান অতিথির বক্তব্যে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে সবচেয়ে বেশি অবদান রাখছে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প। এ খাতের উন্নয়নে সরকারের নীতিমালা ও ব্যাংকঋণ ব্যবস্থা থাকলেও বাস্তব ক্ষেত্রে সব সময় সহযোগিতা পাওয়া যায় না। আমাদের এসএমই খাত অল্প কিছু পণ্যের মধ্যে সীমাবদ্ধ রয়েছে। তাই পণ্যের বৈচিত্র্য আনয়নে গবেষণা ও উদ্ভাবন খাতে প্রাইভেট সেক্টরের বিনিয়োগ প্রয়োজন। এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, বিশ্ববাণিজ্যে বাংলাদেশ একটি উদীয়মান দেশ হিসেবে নতুনরূপে আবির্ভূত হয়েছে। এইচএসবিসির সাম্প্রতিক রিপোর্টের সূত্র ধরে বলেন, বাংলাদেশ ২০৩০ সালের মধ্যে ২৬তম শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ হবে।

চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প হচ্ছে অর্থনীতির প্রাণ। এসএমই খাতের ওপরই একটি শক্তিশালী ও টেকসই অর্থনীতি নির্ভরশীল। এ খাতের উন্নয়নে সহজশর্তে ব্যাংকঋণ প্রদান, বিশেষত নারী উদ্যোক্তাদের ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ প্রদানের জন্য ব্যাংকগুলোর প্রতি অনুরোধ জানান।

অনুষ্ঠানে এনসিসি ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট জয়নাল আবেদীন বক্তব্য দেন। মেলা আগামী ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। এই মেলার প্রধান আকর্ষণ বাংলাদেশি বিজ্ঞানী কর্তৃক আবিষ্কৃত পাটজাত বায়োডেগ্রেডেবল পলিথিন। মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড ও এনসিসি ব্যাংক লিমিটেডসহ মোট স্বনামধন্য ৯টি ব্যাংক এসএমই খাতের উন্নয়নে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধামূলক তথ্য সরবরাহ করার লক্ষ্যে মেলায় অংশগ্রহণ করছে। এ ছাড়া চামড়া, প্লাস্টিক, পাট ও পাটজাত পণ্য, বুটিকস, শুকনো খাবারসহ বিভিন্ন সেক্টর থেকে ৪৫টিরও বেশি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশগ্রহণ করছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা