kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আকাশবীণার খুলে যাওয়া ‘র‌্যাফট’ লাগানো হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আকাশবীণার খুলে যাওয়া ‘র‌্যাফট’ লাগানো হয়েছে

বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার আকাশবীণা

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বহরে সদ্য যুক্ত হওয়া অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার আকাশবীণার জরুরি দরজার একটি বিশেষ অংশ (র‌্যাফট) লাগানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে পূর্ণ ক্যাপাসিটি নিয়ে ড্রিমলাইনার তার ফ্লাইট চালাচ্ছে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত এই বিমান সংস্থা।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ কালের কণ্ঠকে বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরেই খুলে যাওয়া র‌্যাফট লাগানো হয়েছে এবং আমরা পূর্ণ সক্ষমতা নিয়ে যাত্রী পরিবহন শুরু করেছি। এটা লন্ডন থেকে নিয়ে আসা হয়েছে বলে জানান তিনি।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সকালে ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরগামী ফ্লাইটটিতে র‌্যাফট খুলে পড়লে দেড় ঘণ্টা দেরি হয়। দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ভুল সুইচ চাপলে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমানকে সঙ্গে সঙ্গে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে উড়ালের আগে যাবতীয় প্রস্তুতি চলছিল আকাশবীণার। এ সময় বোর্ডিং ব্রিজে যুক্ত থাকা বিমানটিতে খাবার তোলা হচ্ছিল। তখনই ভুল বাটনে চাপ পড়ে জরুরি দরজা খুলে পড়ে যায়।

সংশ্লিষ্টরা জানান, কোনো কারণে বিমান জরুরি অবতরণ করলে যাত্রীদের জরুরি ভিত্তিতে নামানোর জন্য এই ধরনের স্বয়ংক্রিয় দরজা ব্যবহার করা হয়। এ ধরনের দরজা একবারই ব্যবহার করা যায়। একে যান্ত্রিক ভাষায় বলা হয় র‌্যাফট। ইমারজেন্সিতে যাত্রীদের বিমান থেকে বের হওয়ার জন্য স্টুয়ার্ডরা যে বাতাসে ফোলানো স্লাইডার খুলে দেয়, সেই র‌্যাফটই ভুল করে খুলে ফেলেছিলেন বিমানের প্রকৌশলী।

শাকিল মেরাজ আরো বলেন, ‘মঙ্গলবার সকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বোর্ডিং ব্রিজ লাগানো অবস্থায় ভুল বোতাম চাপের কারণে র‌্যাফটের অংশবিশেষ খুলে যায়। দরজা ভেঙে যাওয়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি। আকাশবীণার যাত্রীদের নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে র‌্যাফটের ওই অংশ রিপ্লেসের আগ পর্যন্ত আমরা ৫২ যাত্রী কম পরিবহন করেছি।’ সংশ্লিষ্টরা জানান, র‌্যাফটের অংশবিশেষ খুলে গেলে পরবর্তীতে এটি বিমানের প্রকৌশল বিভাগে পরীক্ষার জন্য নেওয়া হয়। ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরের বিজি-০৮৪ ফ্লাইটটি ছাড়ার নির্ধারিত সময় ৮টা ২৫ মিনিটে থাকলেও এটি এক ঘণ্টা পরে উড্ডয়ন করে।

গত ৫ সেপ্টেম্বর আকাশবীণার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেদিনই উড়োজাহাজটি কুয়ালালামপুরের উদ্দেশে বাণিজ্যিক ফ্লাইট শুরু করে। বর্তমানে এটি কুয়ালালামপুর ও সিঙ্গাপুর রুটে যাত্রী পরিবহন করছে। বোয়িং ড্রিমলাইনার ৭৮৭ ‘আকাশবীণা’ দেশে আনা হয় গত ১৯ আগস্ট। ওই দিন বিকেল ৫টা ১৯ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে উড়োজাহাজটি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা