kalerkantho

রবিবার। ১৮ আগস্ট ২০১৯। ৩ ভাদ্র ১৪২৬। ১৬ জিলহজ ১৪৪০

১৫ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ

তুরস্কের অর্থনৈতিক দুর্দিনে পাশে কাতার

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৭ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্যযুদ্ধে তুরস্কের অর্থনীতি যখন বড় সংকটে তখন পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে দীর্ঘদিনের বন্ধু কাতার। গত বুধবার কাতার সরকারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তুরস্কের অর্থনীতিতে সক্ষমতা বাড়াতে তারা ১৫ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে। কাতারের এ ঘোষণার পর দরপতনে থাকা তুরস্কের মুদ্রা লিরা কিছুটা চাঙ্গা হয়ে ওঠে।

গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্র সরকারের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তুরস্কের ওপর আরোপিত শুল্ক প্রত্যাহার করে নেবে না তারা। যুক্তরাষ্ট্রের ধর্মযাজক অ্যান্ড্রো ব্রানসনকে আটকের ঘটনায় তুরস্কের ঊর্ধ্বতন দুই কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। তাতেও কাজ না হলে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তুরস্কের অ্যালুমিনিয়াম এবং ইস্পাত আমদানিতে শুল্ক দ্বিগুণ করার ঘোষণা দেন। এ ঘটনায় ডলারের বিপরীতে তুরস্কের মুদ্রা লিরার দাম কমে রেকর্ড সর্বনিম্ন হয়েছে।

এ বছর ডলারের বিপরীতে লিরার দর পড়েছে প্রায় ৪০ শতাংশ। বলা হচ্ছে, ২০০১ সালের পর তুরস্কের মুদ্রাবাজারে এটিই সবচেয়ে বড় সংকট। এ অবস্থায় অর্থনীতির গতি ফেরাতে আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের নিয়ে এক সম্মেলনের ডাক দিয়েছেন তুরস্কের অর্থমন্ত্রী বেরাত আলবায়রাক। দেশটির এই সংকটময় মুহূর্তে কাতারের পাশে দাঁড়ানোকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখা হচ্ছে। তুরস্কের একটি সরকারি সূত্র জানায়, কাতারের অর্থ ব্যাংক ও আর্থিক খাতে কাজে লাগানো হবে।

এ অর্থ বিনিয়োগ ও আমানত দুইভাবেই আসবে।

এদিকে শুল্ক আরোপের বিপরীতে যুক্তরাষ্ট্রের ইলেকট্রিক পণ্য বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক। এর পাশাপাশি দেশটির গাড়ি, অ্যালকোহল এবং তামাক আমদানিতে বাড়তি শুল্ক আরোপ করেছে তুরস্ক। এএফপি, রয়টার্স।

মন্তব্য