kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

শিল্প প্রবৃদ্ধি প্রত্যাশার চেয়ে ভালো

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৯ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিল্প প্রবৃদ্ধি প্রত্যাশার চেয়ে ভালো

পোশাক খাতকে ঘিরে সমাপ্ত অর্থবছরে বাংলাদেশের শিল্প প্রবৃদ্ধি প্রত্যাশার চেয়ে ভালো হয়েছে। এর পাশাপাশি সেবা খাতের অর্জনও অর্থনীতিতে বড় ভূমিকা রেখেছে। ফলে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে বাংলাদেশ ভালো প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। তবে ঢাকায় সাম্প্রতিক সন্ত্রাসী হামলা বিনিয়োগকারীদের আস্থায় চিড় ধরাতে পারে, যা আগামী অর্থবছরের প্রবৃদ্ধিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

গতকাল সোমবার এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি) প্রকাশিত এক পূর্বাভাস প্রতিবেদনে বাংলাদেশের অর্থনীতি নিয়ে এমনটি জানানো হয়েছে। ‘এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট আউটলুক ২০১৬’ শীর্ষক এ সাপ্লিমেন্টে এডিবি জানায়, ২০১৬ সালে দক্ষিণ এশিয়ায় মূল্যস্ফীতি থাকবে ৫.২ শতাংশ। ২০১৭ সালেও একই মূল্যস্ফীতি থাকবে বেশির ভাগ দেশের। এর মধ্যে বাংলাদেশ ও ভুটানে অভ্যন্তরীণ সরবরাহ বাড়ায় মূল্যস্ফীতি নিম্নমুখী রয়েছে।

সংস্থার মতে, দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনীতি এ বছর শক্তিশালী থাকবে। আগের পূর্বাভাস অনুযায়ী ২০১৬ সালে এ অঞ্চলের প্রবৃদ্ধি আসবে ৬.৯ শতাংশ এবং ২০১৭ সালে আসবে ৭.৩ শতাংশ। এর মধ্যে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের ৩০ জুন শেষ হওয়া ২০১৬ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি এডিবির পূর্বাভাসের চেয়েও বেশি অর্জিত হয়েছে।

এডিবির প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি শ্লথ হওয়ার পাশাপাশি ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ত্যাগ করার সিদ্ধান্তে এর সাময়িক প্রভাব পড়বে এশিয়ার অর্থনীতিতে। ফলে চলতি বছর প্রবৃদ্ধি কমবে এ অঞ্চলের। এ বছর উন্নয়নশীল এশিয়ার প্রবৃদ্ধি কমে হবে ৫.৬ শতাংশ। মার্চে দেওয়া পূর্বাভাসে ৫.৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনের কথা বলা হয়েছিল। গত জুনে ব্রিটেনের এক গণভোটের মাধ্যমে দেশটির জনগণ ইইউর সঙ্গে না থাকার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়। এতে অস্থির হয়ে ওঠে বিশ্ব শেয়ারবাজার ও অর্থবাজার। ইতিমধ্যে ইউরোপের প্রবৃদ্ধিতে এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে।

এডিবি আশা করছে, ২০১৭ সালে এ অঞ্চলের প্রবৃদ্ধি আসবে ৫.৭ শতাংশ। এডিবির প্রধান অর্থনীতিবিদ শেংগ-জি উই বলেন, যদিও ব্রেক্সিটের ফলে উন্নয়নশীল এশিয়ার মুদ্রাবাজার এবং শেয়ারমার্কেট কিছুটা প্রভাবিত হয়েছে; কিন্তু কার্যত অর্থনীতিতে এর সাময়িক প্রভাব খুব বেশি হবে না। তবে বাইরের যেকোনো প্রভাবের ব্যাপারে এশিয়ার নীতিনির্ধারকদের সতর্ক থাকতে হবে প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করার জন্য।

এডিবি মনে করে শ্লথ প্রবৃদ্ধি সত্ত্বেও এ বছর চীনের অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধি আসবে ৬.৫ শতাংশ এবং ২০১৭ সালে প্রবৃদ্ধি আসবে ৬.৩ শতাংশ। তবে দেশটিতে শিল্প সক্ষমতা কমানোর যে পরিকল্পনা সরকার নিয়েছে তা আগামী বছর প্রবৃদ্ধিতে প্রভাব ফেলতে পারে। অন্যদিকে ভারতের অর্থনীতি এ বছর ৭.৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে এবং আগামী বছর এ প্রবৃদ্ধি আসবে ৭.৮ শতাংশ। এর পাশাপাশি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলেও প্রবৃদ্ধি পূর্বাভাস এ বছর ৪.৫ শতাংশ অপরিবর্তিত থাকবে এবং আগামী বছর প্রবৃদ্ধি আসবে ৪.৮ শতাংশ। রয়টার্স, এডিবির প্রতিবেদন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা