kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের সক্ষমতা অর্জন করল বিএবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের সক্ষমতা অর্জন করল বিএবি

বিএবির আয়োজিত অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুসহ অন্যরা

দেশে প্রতিষ্ঠিত টেস্টিং ল্যাবরেটরিগুলোর অনুকূলে আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য পরীক্ষণ সনদ (অ্যাক্রেডিটেশন সার্টিফিকেট) প্রদানের সক্ষমতা অর্জন করল শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড (বিএবি)। ৮ জানুয়ারি হংকংয়ে অনুষ্ঠিত এশিয়া প্যাসিফিক ল্যাবরেটরি অ্যাক্রেডিটেশন কো-অপারেশনের পারস্পরিক স্বীকৃতিবিষয়ক সভায় বিএবি এ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জন করে। শিল্প মন্ত্রণালয় ভবনে অবস্থিত বিএবির কার্যালয় পরিদর্শন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু গতকাল রবিবার এ স্বীকৃতির কথা জানান।

বিএবির মহাপরিচালক মো. আবু আবদুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শিল্পসচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া এনডিসি, বিএসটিআইর মহাপরিচালক ইকরামুল হক, ডাইসিন গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান, এসজিএসের কোয়ালিটি ও সেফটি বিষয়ক ব্যবস্থাপক মো. মোস্তাক পারভেজ বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী বলেন, বিএবির ল্যাবরেটরি অ্যাক্রেডিটেশন কার্যক্রম আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতা পাওয়ায় বিশ্ববাজারে বাংলাদেশি পণ্যের রপ্তানি বাড়বে। তিনি এ অর্জন ধরে রাখতে টেস্টিংয়ের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ মান বজায় রাখার নির্দেশনা দেন। আমির হোসেন আমু বলেন, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক নিয়ে ষড়যন্ত্র অব্যাহত রয়েছে। এ ষড়যন্ত্রের মোকাবিলায় পণ্যের গুণগত মান উন্নত করার পাশাপাশি পরীক্ষণ ল্যাবরেটরির সক্ষমতা বাড়াতে হবে। পরীক্ষণের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক মান ধরে রাখতে সক্ষম হলে বিদেশি ক্রেতারাও বাংলাদেশ থেকে টেস্টিং সার্টিফিকেট নেবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

বিএবি বর্তমানে পণ্যের ওজন ও পরিমাপ (ক্যালিব্রেশন), মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি, সার্টিফিকেশন বডি, ইন্সপেকশন বডি ও হালাল সার্টিফিকেশনের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জনের লক্ষ্যে কাজ করছে। খুব শিগগির এসব খাতেও বিএবি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাবে। এর ফলে বিদেশ থেকে পণ্যের গুণগত মান সনদ নিতে যে অর্থ ও সময় খরচ হয়, তা সাশ্রয় হবে। বর্তমানে গুণগত মান সনদ খাতে উদ্যোক্তাদের মোট রপ্তানির ২০ শতাংশ ব্যয় হচ্ছে। এ হিসাবে সব বিষয়ে বিএবি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলে বছরে ন্যূনতম ছয় বিলিয়ন ডলার সাশ্রয় হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

 

মন্তব্য