kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ ফাল্গুন ১৪২৭। ৯ মার্চ ২০২১। ২৪ রজব ১৪৪২

ইউনেসক্যাপ প্রতিবেদন

উন্নয়নশীল বিশ্বে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি হবে ৭ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ নভেম্বর, ২০১৩ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উন্নয়নশীল বিশ্বে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি হবে ৭ শতাংশ

উন্নয়নশীল দেশগুলোতে পণ্যের রপ্তানি প্রবৃদ্ধি চলতি বছরে কিছুটা কম হলেও আগামী বছর তা বাড়বে। জাতিসংঘের সামাজিক ও অর্থনীতিবিষয়ক আঞ্চলিক সংস্থা- ইউনেসক্যাপ প্রকাশিত 'এশিয়া প্যাসিফিক ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট রিপোর্ট-২০১৩'-এ এ আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৩ সালে এ অঞ্চলের রপ্তানি প্রবৃদ্ধি ৬ শতাংশের কম হলেও আগামী বছর তা ৭ শতাংশ হবে।

গতকাল শনিবার ঢাকা চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) মিলনায়তনে 'এশিয়া প্যাসিফিক ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট রিপোর্ট-২০১৩'-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইনস্টিটিউট (বিএফটিআই), ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) এবং ইউএনএসক্যাপ যৌথভাবে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বিএফটিআই সিইও ড. মো. মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ডিসিসিআই সভাপতি মো. সবুর খান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের উন্নয়নশীল দেশগুলো ৩৩ শতাংশের বেশি বৈদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে সমর্থ হয়েছে। আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক উৎপাদন নেটওয়ার্কে বাংলাদেশের শিল্প ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে আরো কার্যকরভাবে সম্পৃক্ত করার উদ্দেশ্যে সরকার বাণিজ্যবিষয়ক ব্যয়সংকোচনকে প্রাধান্য দিয়েছে। এসএমই খাতের পণ্য উৎপাদনকারীদের লাভবান করতে বাণিজ্য সম্পর্কিত অবকাঠামোগুলো আরো সহজলভ্য করার ওপর জোর দিয়েছে।

মো. মুজিবুর রহমান বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির উন্নয়নে নীতিমালার ধারাবাহিকতা এবং রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে হবে। তিনি দেশের অর্থনীতির স্বার্থে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে ব্যবহৃত পণ্য পরিবহন ব্যবস্থাকে হরতাল-অবরোধের আওতার বাইরে রাখার জন্য সব রাজনৈতিক দলের প্রতি আহ্বান জানান।

মো. সবুর খান বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকাকে আরো গতিশীল করার জন্য অবকাঠামো উন্নয়নের কোনো বিকল্প নেই। তিনি ব্যাংকিং খাতে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার আরো বাড়ানো এবং বিদ্যমান পণ্যের মেধাস্বত্ব আইনগুলোকে আরো কাযর্কর করার ওপর জোর দেন। নির্ধারিত আলোচনায় বাংলাদেশ ইনিশিয়েটিভ ফর লিডিং ডেভেলপমেন্টের (বিল্ড) সিইও ফেরদৌস আরা বেগম বাংলাদেশের সার্ভিস সেক্টরগুলো বিশেষ করে পর্যটন খাতকে আরো সক্রিয় করার কথা বলেন। এ ছাড়া বাংলাদেশের রপ্তানিযোগ্য পণ্যের সংখ্যা বাড়াতে তিনি 'এক জেলা এক পণ্য'ভিত্তিক কার্যক্রম ফের চালু ও বাস্তবায়নের আহ্বান জানান।

 

 

মন্তব্য