kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সানেমের সম্মেলনে বক্তারা

উন্নয়নে নজর দিতে হবে গ্রামেও

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উন্নয়নে নজর দিতে হবে গ্রামেও

গতকাল সানেমের সম্মেলন উদ্বোধন করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

শুধু শহরের অবকাঠামো উন্নয়ন নয়; গ্রামের উন্নয়নের দিকেও বিশেষ মনোযোগ দেওয়ার তাগিদ দেওয়া হয়েছে এক সম্মেলন থেকে। দুই দিনের দক্ষিণ এশিয়া অর্থনৈতিক নেটওয়ার্ক কনফারেন্সের প্রথম দিনে বক্তারা জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বা এসডিজির সূচক অর্জনে স্থানীয় সরকার শক্তিশালীকরণ করার তাগিদ দেন। একই সঙ্গে স্থানীয় সরকারকে দুর্নীতিমুক্ত করারও দাবি করেছেন তাঁরা।

বক্তাদের মতে, অর্থনৈতিক বিকেন্দ্রীকরণের পাশাপাশি রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণ জরুরি। সেটি নিশ্চিত করতে না পারলে শুধু অর্থনৈতিক বিকেন্দ্রীকরণ করা হলে দুর্নীতি হতে পারে। আবার শুধু প্রশাসনিক হলেও কাজ হবে না। গতকাল শনিবার দুই দিনের সম্মেলনের উদ্বোধন করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে এ সম্মেলনের আয়োজন করে সাউথ এশিয়া নেটওয়ার্ক অন ইকোনমিক মডেলিং (সানেম), সাউথ এশিয়া ইকোনমিক পলিসি নেটওয়ার্ক এবং বিশ্বব্যাংক।

উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এমন একসময় ছিল যখন সেবার বাইরে ছিল গ্রামাঞ্চল। গ্রাম এবং শহরের মধ্যে ছিল উন্নয়ন বিভাজন। এখন পাল্টে গেছে সেই ধারণা। শহুরে বাবুদের আগে সেবা দিতে হবে বিষয়টি এখন সে রকম নয়। সে ধারণা বদলে গেছে। বর্তমানে গ্রাম এবং শহরের মধ্যে সমান্তরালভাবে উন্নয়ন হচ্ছে। বৈষম্য দূর করতে হলে সম্পদের সুষম বণ্টন দরকার। এম এ মান্নান বলেন, পুরনো ধারণা ভেঙে এখন নতুন রূপে অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত হচ্ছে। প্রাথমিক শিক্ষা এবং বিদ্যুত্ব্যবস্থা সবার কাছে পৌঁছে দেওয়ার কাজটি নিবিড়ভাবে করছে সরকার। অর্থ ব্যবহারে স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহি নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, সবার জন্য সুষম উন্নয়ন নিশ্চিত করতে স্থিতিশীল পরিবেশ প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে সারা জীবন আমাদেরই যে মন্ত্রী থাকতে হবে তা নয়। পাঁচ বছর পর পর আমাদের জনগণের কাছে যেতে হবে। এখন পানি, বিদ্যুৎ শুধু ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটে পাবে তা নয়, প্রতিটি গ্রামে এসব সেবা দেওয়া হচ্ছে। সম্মেলনে বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়ার প্রধান অর্থনীতিবিদ হ্যানস টিমার, বিশ্বব্যাংকের অর্থনীতিবিদ রবার্ট বেয়ার, বাংলাদেশে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের আবাসিক প্রধান মার্সি টেম্বন এবং সানেমের নির্বাহী পরিচালক সেলিম রায়হান উপস্থিত ছিলেন।

মার্সি টেম্বন তাঁর বক্তৃতায় বলেন, অপ্রতুল শাসন কাঠামো দক্ষ স্থানীয় সেবা সরবরাহের ক্ষেত্রে অন্তরায়। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর একে অপরের কাছ থেকে শিখতে হবে। স্থানীয় সরকার ব্যবস্থায় দুর্বলতা আছে বলে মনে করে বিশ্বব্যাংক। বলা হয়েছে, স্বচ্ছতা এবং কাজে গতি আনতে প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণ প্রয়োজন। সম্মেলনে ভারত, নেপাল, পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কার স্থানীয় সরকার ব্যবস্থার বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়েছে।

অন্য এক অধিবেশনে অংশ নিয়ে বিশ্বব্যাংক ঢাকা অফিসের সাবেক প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন বলেন, ‘আমরা তো সাধারণত মনে করি ক্ষমতা বিকেন্দ্রীকরণ করা হলে দুর্নীতি কমবে। কিন্তু সেটি একক কোনো দিক বিকেন্দ্রীকরণ করলে হবে না। রাজস্ব আদায়ের সঙ্গে সঙ্গে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণ করতে হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা