kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

শিল্পে মূল্য সংযোজনে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বড় ভূমিকা রাখবে

বাণিজ্য ডেস্ক   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিল্পে মূল্য সংযোজনে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বড় ভূমিকা রাখবে

দেলোয়েতে চায়নার চেয়ারম্যান ফিলিপ টিসাই

ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই)। বেশির ভাগ কম্পানি এরই মধ্যে এআই নিয়োগ শুরু করেছে বা করার পরিকল্পনা করছে। সম্প্রতি স্মার্ট চায়না এক্সপোর ২০১৯ ফোরামে এসব কথা বলেন দেলোয়েতে চায়নার চেয়ারম্যান ফিলিপ টিসাই।

বহুজাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান দেলোয়েতে বিভিন্ন কম্পানির ওপর সম্প্রতি এক জরিপ পরিচালনা করে। এতে ৪১ শতাংশ উত্তরদাতা জানায়, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা শিল্প খাতে উল্লেখযোগ্য প্রভাব রাখবে। ১২ শতাংশ মনে করে, শিল্পের রূপান্তরে চালকের ভূমিকায় থাকবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা। জরিপে অংশ নেওয়া ৫২ শতাংশ কম্পানি এরই মধ্যে এআই নিয়োগ দেওয়া শুরু করেছে। ৩৫ শতাংশ কম্পানির পরিকল্পনায় এটি আছে।

টিসাই বলেন, প্রকৃত অর্থনীতি ও ডিজিটাল প্রযুক্তির মধ্যে সমন্বয়ের মধ্য দিয়ে শিল্প খাতের পরবর্তী ধাপে মূল্য সংযোজন ঘটবে। দেলোয়েতের তথ্য অনুযায়ী, এ বছর ডিজিটাল রূপান্তরে ২ দশমিক ৮ ট্রিলিয়ন ইউয়ান (৩৯১ বিলিয়ন ডলার) ব্যয় করবে চীন। ২০২০ সালে এ ব্যয় আরো বেড়ে হবে ৩ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন ডলার এবং ২০২১ সালে ৩.৭ ট্রিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে ২০১৯ সালে সর্বোচ্চ বরাদ্দ ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে ব্যয় হবে ২২০ দশমিক ৫ বিলিয়ন ইউয়ান, সরকারি খাতে ১৯৩ দশমিক ৪ বিলিয়ন ইউয়ান ও আর্থিক সেবা খাতে ১৪৫ দশমিক ৫ বিলিয়ন ইউয়ান।

টিসাই বলেন, এআই ও বিগ ডাটার সমন্বয়ে প্রযুক্তি শুধু ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে বড় ভূমিকা রাখবে না, খুচরা খাতেও বড় ভূমিকা রাখবে। যা সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার সঙ্গে জড়িত।

তিনি বলেন, গত ২০ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ব্যাবসায়িক পরিবেশে বড় ধরনের পরিবর্তন এসেছে। আগে পণ্য উৎপাদনকারী ও ক্রেতাদের মদ্যে অনেক মধ্যস্থতাকারী ছিল। এসব এজেন্টের মাধ্যমে পণ্য ক্রেতাদের হাতে পৌঁছাত। আর এখন ই-কমার্সের মাধ্যমে ক্রেতারা সরাসরি শিল্পোদ্যোক্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছে।

ফিলিপ টিসাই ২০১৬ সালে দেলোয়েতে চায়নার চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন। এর আগে তিনি প্রতিষ্ঠানটির ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১২ সাল থেকে ছিলেন বোর্ড সদস্য। পেশায় একজন চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট টিসাই একজন অ্যাকাউন্ট্যান্ট হিসেবে প্রচুর খ্যাতি অর্জন করেছেন। ব্যবসায়ী হিসেবেও সাফল্য পেয়েছেন। তিনি হংকং ইনস্টিটিউট অব সার্টিফায়েড পাবলিক অ্যাকাউন্ট্যান্টসে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। অডিটে তাঁর দীর্ঘ ৩০ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি স্থানীয় ও বহুজাতিক কম্পানিগুলোতে অডিট বিষয়ে কাজ করেছেন। চায়না ডেইলি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা