kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আতিক মামার বাতিক

শচীন্দ্র নাথ গাইন

২৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



আতিক মামার বাতিক ভীষণ মোটরবাইক চড়া,

কিন্তু সে সাধ হয় না পূরণ, কারণ মামি কড়া।

যখন তখন চেঁচিয়ে হঠাৎ মাত করে দেয় বাড়ি,

রাগের মাথায় আছাড় মারেন রান্না ভাতের হাঁড়ি।

 

ক্ষোভের বশে দাপিয়ে নিজের হারিয়ে ফেলেন জ্ঞান,

কাণ্ড দেখে নীরব মামা বসেই করেন ধ্যান।

কষ্টে তখন বুক ভেসে যায় নামে চোখের জল,

থরথরিয়ে কাঁপতে থাকে পালায় দেহের বল।

 

এই মামিকে সবাই চেনে, কোটিপতির মেয়ে

স্বামী বেকার হতচ্ছাড়া, ধন্য তাকে পেয়ে।

মামির হুকুম মানতে মামা, বসে এবং ওঠে

খায়-দায় আর ঘুমোতে যায়, হাটবাজারেও ছোটে।

 

বাপের টাকায় ভালোই চলে তাইতো মামি জেদি

কাজ না করে শরীর ভারী, জমছে কেবল মেদই।

সেদিন ভোরে ডাকার ঠেলায় উঠল জেগে মামা,

ভিজল ঘামে গায়ের যত লুঙ্গি গেঞ্জি জামা।

 

চোখ রাঙিয়ে বলল মামি আচ্ছা জোরে হেঁকে

বাইক কেনার যুক্তি তোমায় শিখিয়ে দিল কে কে?

এসব চড়ে দুর্ঘটনা ঘটলে পরে ক্ষতি,

ভাবতে পারো তখন আমার কোনটা হবে গতি?

 

মুখের কথা শেষ না করেই ফুঁপিয়ে মামি কাঁদে,

বাচ্চা দুটি শব্দ শুনে দৌড়ে এলো ছাদে।

জড়িয়ে ধরে মায়ের গলা কাঁদেও দেখি তারা,

বাইক চড়ার স্বপ্ন মামার সেই থেকে হয় সারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা