kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

শেষবার দেখতে মানুষের ঢল, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম ও হাটহাজারী প্রতিনিধি   

৩১ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেষবার দেখতে মানুষের ঢল, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি

পাঁচজনের মরদেহ নিয়ে অ্যাম্বুল্যান্সগুলো যখন পৌঁছায়, তখন চট্টগ্রামের হাটহাজারীর ছমদিয়া স্কুল মাঠ কানায় কানায় পূর্ণ। শেষবারের মতো প্রিয় মুখগুলো একনজর দেখার জন্য মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ে। গতকাল শনিবার ভোর থেকেই মানুষ দলে দলে মাঠে আসতে শুরু করে। সকাল ১০টায় জানাজা হয়।

বিজ্ঞাপন

এরপর দুর্ঘটনার জন্য দায়ী গেটম্যানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায় স্বজনরা।  

এদিকে দায়িত্বে অবহেলাজনিত হত্যার অভিযোগ এনে গতকাল গেটম্যান সাদ্দাম হোসেনকে আসামি করে চট্টগ্রামে মামলা করা হয়েছে। চট্টগ্রাম রেলওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) জহিরুল ইসলাম বাদী হয়ে জিআরপি থানায় মামলাটি করেন। বিকেলে চট্টগ্রামের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুন নাহারের আদালতে সাদ্দামকে হাজির করলে বিচারক তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের চট্টগ্রামের বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) আবুল কালাম আজাদ চৌধুরী বলেন, দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে সাদ্দামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এই দুর্ঘটনায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলাও করা হয়েছে। দুর্ঘটনা তদন্তে কমিটি করা হয়েছে। তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গত শুক্রবার দুপুরে মিরসরাই উপজেলার খৈয়াছড়া এলাকায় ট্রেনের ধাক্কায় মাইক্রোবাসের ১১ যাত্রী নিহত হয়। এ দুর্ঘটনায় সাতজন আহত হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় গেটম্যান সাদ্দাম হোসেনকে গ্রেপ্তার করে রেলওয়ে থানা পুলিশ।

একসঙ্গে পাঁচজনের জানাজা শেষে কেএস নজু মিয়া স্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত ইকবাল হোসেন মারুফের মামা মিনহাজুর রহমান জনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমার চাচাতো বোনের অনেক পরিশ্রমের ধন ছিল মারুফ। ছেলেকে হারিয়ে আমার বোন এখন পাগলপ্রায়। ’ জনি এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার জন্য গেটম্যানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

জানাজায় অংশ নেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জেলা পরিষদের প্রশাসক এম এ সালাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিদুল আলম, হাটহাজারী মডেল থানার ওসি রুহুল আমিন সবুজ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদুল আলম প্রমুখ। নিহত অন্য ছয়জনের মধ্যে পাঁচজনের জানাজা নিজ নিজ এলাকায় সম্পন্ন হয়।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টায় নতুনপাড়া আজিজ মেম্বারের বাড়িতে একজনের, একই সময়ে ছমদিয়া স্কুল মাঠে  আরেকজনের জানাজা হয়। গতকাল সকাল ১১টায় ফতেপুর ইউনিয়নে একজনের, শিকারপুরে একজনের এবং সকাল সাড়ে ১০টায় কেএস নজু মিয়া স্কুল মাঠে এক ছাত্রের জানাজা হয়।



সাতদিনের সেরা