kalerkantho

রবিবার । ১৪ আগস্ট ২০২২ । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৫ মহররম ১৪৪৪

পাচার অর্থ ফিরিয়ে আনার প্রস্তাব বহাল রেখে অর্থ বিল পাস

সংসদে আজ বাজেট পাস

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে




পাচার অর্থ ফিরিয়ে আনার প্রস্তাব বহাল রেখে অর্থ বিল পাস

বিভিন্ন সময়ে পাচার হওয়া অর্থ দেশ ফিরিয়ে আনার প্রস্তাব বহাল রেখে জাতীয় সংসদে অর্থ বিল-২০২২ পাস হয়েছে। পাস হওয়া বিলে তেমন কোনো উল্লেখযোগ্য সংশোধনী আনা হয়নি। এর বাইরে সংসদ সদস্যদের আনা যে ১৭টি সংশোধনী গৃহীত হয়েছে, সেগুলো মূলত বিলের ভাষাগত পরিবর্তন।

গতকাল বুধবার স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বিলটি পাসের প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়।

বিজ্ঞাপন

এ সময় সংসদে সরকার ও বিরোধীদলীয় এমপিরা টেবিল চাপড়ে অর্থমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান। এর আগে অর্থ বিল-২০২২ নিয়ে জনমত যাচাইয়ের প্রস্তাবগুলো সংসদে কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। অর্থ বিলের ওপর আনীত সংশোধনীগুলোর মধ্যে ১৭টি প্রস্তাব কণ্ঠভোটে গৃহীত হয়। বাকিগুলো সদস্যদের কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।

প্রস্তাবিত বাজেটে আনা সংশোধনীর মধ্যে রয়েছে ৭ শতাংশ কর দিয়ে শুধু পাচার করা নগদ টাকা দেশে আনা যাবে। যারা সরকারের দেওয়া এই সুযোগ নেবে না, তাদের জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। জরিমানার পরিমাণ হবে নির্ধারিত করের সমপরিমাণ।

পাস হওয়া বিলে কম হারে করপোরেট কর সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রেও সংশোধন আনা হয়েছে। আর জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত বাজেটে স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ আনার ক্ষেত্রে যে সুযোগ রাখা হয়েছিল, তা বাতিল করা হয়েছে। আর স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ আনার ক্ষেত্রে প্রস্তাবিত বাজেটে যে সুযোগ রাখা হয়েছিল, তা বাতিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে কম হারে করপোরেট কর সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রেও সংশোধন আনা হয়েছে। যেসব কম্পানি বছরে ৩৬ লাখ টাকার বেশি ব্যাংকের মাধ্যমে লেনদেন করবে, তারা কম হারে করপোরেট কর পরিশোধের সুবিধা পাবে।

বিল পাসের আগে বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় সমাপনী ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি

বাজেটের অগ্রাধিকারের বিষয়গুলো তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এবারের বাজেটে অর্থনীতিকে সচল রাখা, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, শিক্ষা-স্বাস্থ্য খাতকে অধিক গুরুত্ব দেওয়া, রপ্তানি আয় বৃদ্ধি, কর্মসৃজন বাড়ানো, পল্লী উন্নয়ন, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি বাড়ানো, কভিড-১৯ পরবর্তী অর্থনেতিক পুনরুদ্ধার ও ঘোষিত প্রণোদনাকে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

এর আগে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ সমাপনী বক্তব্য দেন। এ সময় তিনি বাজেটের ওপর তেমন কোনো আলোচনা না করলেও পদ্মা সেতু খুলে দেওয়ায় সরকারকে অভিনন্দন জানান। তিনি শারীরিক অসুস্থতার কারণে ৯ জুন বাজেট উপস্থাপনের দিন সংসদে থাকতে পারেননি বলে স্পিকারকে জানান।

আজ বাজেট পাস

আজ ৩০ জুন। চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের শেষ দিন। সংসদে ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট পাস করা হবে। আগামীকাল পয়লা জুলাই থেকে নতুন বাজেট কার্যকর হবে।

এর আগে গত ৯ জুন সংসদে আগামী অর্থবছরের জন্য ছয় লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট উপস্থাপন করা হয়, যা চলতি অর্থবছরের চেয়ে ৭৪ হাজার ৩৮৩ কোটি টাকা বেশি। মোট আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে চার লাখ ৩৩ হাজার কোটি টাকা, যা চলতি অর্থবছরের চেয়ে ৪৪ হাজার কোটি টাকা বেশি। বাজেটে পরিচালন বা আবর্তক ব্যয় ধরা হয়েছে তিন লাখ ৭৩ হাজার ২৪২ কোটি টাকা। উন্নয়ন ব্যয় ধরা হয়েছে দুই লাখ ৫৯ হাজার ৬১৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) দুই লাখ ৪৬ হাজার ৬৬ কোটি টাকা।

প্রস্তাবিত বাজেটে মোট আয় ধরা হয়েছে চার লাখ ৩৩ হাজার কোটি টাকা। বরাবরের মতো প্রধান আয়ের খাত হিসেবে এনবিআরের লক্ষ্যমাত্রা তিন লাখ ৭০ হাজার কোটি টাকা, যা চলতি অর্থবছরের চেয়ে ৪০ হাজার কোটি টাকা বেশি। এনবিআরবহির্ভূত রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ১৮ হাজার কোটি টাকা। রাজস্ববহির্ভূত আয় ধরা হয়েছে ৪৫ হাজার কোটি টাকা।

প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি ধরা হয়েছে দুই লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা, যা জিডিপির ৫.৫ শতাংশ আর চলতি অর্থবছরের চেয়ে ৩০ হাজার ৩৮৩ কোটি টাকা বেশি। বাজেটে প্রয়োজনীয় অর্থসংস্থানের জন্য বৈদেশিক উৎস থেকে (অনুদানসহ) পাওয়া যাবে এক লাখ ১২ হাজার ৪৫৮ কোটি টাকা।

 



সাতদিনের সেরা