kalerkantho

শনিবার । ২০ আগস্ট ২০২২ । ৫ ভাদ্র ১৪২৯ । ২১ মহররম ১৪৪৪

শিমুলিয়া-মাঝিরকান্দি

ঘাটে যানবাহনের চাপ নেই, ফেরি চলেনি

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি ও আঞ্চলিক প্রতিনিধি, মানিকগঞ্জ   

২৭ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঘাটে যানবাহনের চাপ নেই, ফেরি চলেনি

পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় গতকাল মাওয়া ফেরিঘাটে কোনো কোলাহল ছিল না। ছবি : কালের কণ্ঠ

পদ্মা সেতু খুলে দেওয়ায় শিমুলিয়া ঘাটের সেই চিরচেনা দৃশ্য আর নেই। যানবাহনের চাপ না থাকায় গতকাল রবিবার শিমুলিয়া থেকে মাঝিরকান্দি পথে কোনো ফেরি চলাচল করেনি। এই পথে লঞ্চ-স্পিডবোটও চলেছে আগের চেয়ে অনেক কম।

এদিকে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের ফলে এর প্রভাব পড়েছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটেও।

বিজ্ঞাপন

গতকাল এই ঘাটে যানবাহনের চাপ ছিল স্বাভাবিকের চেয়ে বেশ কম।

গতকাল সকাল সাড়ে ৯টার দিকে শিমুলিয়া ঘাটে গিয়ে দেখা যায়, পারাপারের জন্য ঘাটে অপেক্ষমাণ কোনো বাস বা ট্রাক নেই। ঘাটে নেই আগের সেই ব্যস্ততা। ৩ নম্বর ঘাটে বেগম সুফিয়া কামাল ফেরি অবস্থান করছে। তবে ফেরির পন্টুুনের টিকিট কাউন্টার বন্ধ।

ফেরি বন্ধ থাকলেও লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল করতে দেখা গেছে। যদিও লঞ্চগুলো দীর্ঘ সময় পর পর ছেড়ে গেছে। বিআইডাব্লিউটিএর শিমুলিয়া লঞ্চঘাটের ট্রাফিক পরিদর্শক (টিআই) মো. সোলেমান বলেন, ‘লঞ্চঘাটে যাত্রীর সংখ্যা কমে গেছে। আগে প্রতি ১২ মিনিট পর পর লঞ্চ ছাড়তাম। যাত্রী না থাকায় এখন আধাঘণ্টায়ও একটা লঞ্চ ছাড়া কষ্টকর ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে এখন আর সময়সূচি ধরে লঞ্চ ছাড়া যাচ্ছে না। ১০০ জনের মতো যাত্রী হলে ঘাট থেকে লঞ্চ ছেড়ে যাচ্ছে। ’

শিমুলিয়া ঘাটের সহ-মহাব্যবস্থাপক শফিকুল ইসলাম বাসসকে জানান, শিমুলিয়া-মাঝিরকান্দি পথে কোনো ফেরি ছেড়ে যায়নি বা মাঝিরকান্দি থেকেও শিমুলিয়া ঘাটে কোনো ফেরি আসেনি। ফেরিতে পার হতে কোনো পণ্যবাহী পিকআপ ভ্যান বা ট্রাকও আসেনি। তাই কোনো ঘাট থেকে ফেরি ছেড়ে যায়নি।  এই ঘাটের ইতিহাসে এটি বিরল ঘটনা।

পাটুরিয়া ঘাটে চাপ কম

এদিকে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে প্রতিদিনের দৃশ্য ফেরির জন্য অপেক্ষমাণ যানবাহনের সারি গতকাল দেখা যায়নি। গতকাল সকাল থেকেই পাটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের চাপ ছিল বেশ কম। তাই এই সময় নদী পার হতে আসা যানবাহনগুলোকে ফেরি পেতে ঘাটে অপেক্ষা করতে হয়নি।

ঘাট সুত্রে জানা গেছে, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের অন্যতম প্রবেশ দ্বার ছিল পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথ।   এই পথ দিয়ে ওই অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ ও যানবাহন প্রতিদিন রাজধানী ঢাকার সঙ্গে যাতায়াত করত। পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় একটি বড় অংশ ওই পথে চলে যাওয়ায় এখানে চাপ কমেছে।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, গতকাল সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ১৫৪টি বাস, ৫০৪টি পণ্যবাহী ট্রাক, ৪৭২টি ছোট গাড়ি পার হয়েছে এই পথ দিয়ে, যা বিগত দিনের এক-তৃতীয়াংশ।

কে-টাইপের ফেরি বনলতার ইনচার্জ মাস্টার আব্দুস সালাম মল্লিক জানান, গত দিনের তুলনায় ফেরি ট্রিপ সংখ্যাও কমে গেছে। কারণ ঘাটে যানবাহনের চাপ কম।

বিআইডাব্লিউটিসির আরিচা কার্যালয়ের ডিজিএম মো. খালিদ নেওয়াজ বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের ফলে এই ঘাটে যানবাহনের চাপ কিছুটা কমেছে। তবে দু-চার দিনে গেলে আবারও এই রুটে যানবাহনের চাপ বাড়বে।



সাতদিনের সেরা