kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ আগস্ট ২০২২ । ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১২ মহররম ১৪৪৪

পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ

দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ

পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেলের (বাইক) চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আজ সোমবার ভোর ৬টা থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হচ্ছে। গতকাল রবিবার এক তথ্য বিবরণীতে এ কথা জানানো হয়। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ থাকবে।

বিজ্ঞাপন

তথ্য বিবরণীতে জানানো হয়, সেতুতে সরকার মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

গতকাল ভোর ৬টার কিছুটা আগে সর্বসাধারণের চলাচলের জন্য সেতু খুলে দেওয়া হয়। তবে টোল প্লাজা খুলে দেওয়ার নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই অনেক যানবাহন সেতু পার হতে সেখানে পৌঁছে। এতে করে মাওয়া প্রান্তে যানবাহনের প্রায় তিন কিলোমিটার দীর্ঘ সারি সৃষ্টি হয়। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক মোটরসাইকেল ছিল। এরপর বিকেলের দিকে জাজিরা প্রান্তে সেতু পার হওয়ার জন্য মোটরসাইকেলের দীর্ঘ সারির সৃষ্টি হয়।

দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যু

পদ্মা সেতু ঘুরে ফেরার পথে সেতুর ওপর মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই বন্ধু নিহত হয়েছেন। তাঁরা হলেন আলমগীর হোসেন (২২) ও মো. ফজলু (২২)। মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া। তিনি জানিয়েছেন, মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

নিহত আলমগীরের বন্ধু জয়দেব রায় জানান, তাঁরা ছয় বন্ধু তিনটি মোটরসাইকেলযোগে ঢাকার দোহার থেকে পদ্মা সেতুতে যান। মাওয়া প্রান্ত দিয়ে ওপারে গিয়ে ফেরার  পথে সেতুর ওপর দুর্ঘটনার শিকার হন।

জয়দেব বলেন, ‘আমরা দুটি মোটরসাইকেলে আগে চলে আসি। পেছনে তাঁদের না দেখতে পেয়ে আবার পেছনের দিকে খোঁজ নিতে গিয়ে জানতে পারি তাঁরা দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন। সেখান থেকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন। ’

মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব জানান, সেতুর ২৭ ও ২৮ নম্বর পিলারের মাঝামাঝি জায়গায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে।



সাতদিনের সেরা