kalerkantho

শনিবার । ২০ আগস্ট ২০২২ । ৫ ভাদ্র ১৪২৯ । ২১ মহররম ১৪৪৪

সয়াবিন তেলের দাম লিটারে কমল ৬ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সয়াবিন তেলের দাম লিটারে কমল ৬ টাকা

আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্য তেলের দাম কমার প্রেক্ষাপটে দেশের বাজারেও কমবে বলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আশাবাদ জানানোর মধ্যে গতকাল রবিবার সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ছয় টাকা কমানোর ঘোষণা দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। ঘোষণা অনুযায়ী, প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হবে ১৮০ টাকা। বোতলজাত প্রতি লিটারের দাম ১৯৯ টাকা। বোতলজাত পাঁচ লিটার সয়াবিন তেলের ক্যান বিক্রি হবে ৯৮০ টাকা।

বিজ্ঞাপন

নতুন দর আজ সোমবার থেকেই কার্যকর হচ্ছে।

ভোজ্য তেলের নতুন দর নির্ধারণ করে গতকাল গণমাধ্যমকে জানিয়েছে বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন। সংগঠনের নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম মোল্লা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল এর আগে সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ দেশের বাজারেও ভোজ্য তেলের দাম কমবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি জানান, বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশন বিশ্ববাজারের দর বিশ্লেষণ করছে।

বাণিজ্যসচিব বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমে গেছে, সেই হিসাবে দেশেও দাম কমানো হবে। এ বিষয়ে আগামী দুই-এক দিনের মধ্যে কিংবা চলতি সপ্তাহের মধ্যে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করা হবে। বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার দ্বাদশ মিনিস্টারিয়াল কনফারেন্সের আলোচনার নানা দিক তুলে ধরতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

তপন কান্তি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক দাম অনুযায়ী দেশে গত এক মাসের মূল্য পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে নতুন করে দাম নির্ধারণ করা হবে। তবে ডলারের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় খুব বেশি কমানো সম্ভব না-ও হতে পারে। ’ তিনি বলেন, ‘এ তেল আমাদের দেশে আসে প্যারাগুয়ে, ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা থেকে। সেখান থেকে তেল আসতে কমপক্ষে ৪৫ থেকে ৬০ দিন লেগে যায়। তাই চাইলেও দেশের বাজারে তাত্ক্ষণিক দাম কমানো যায় না। সুখবর হলো, ইন্দোনেশিয়া থেকে এখন কিছু তেল আসে, তবে সেখান থেকেও আসতে ১৫ থেকে ২০ দিন সময় লাগে। ’

প্রসঙ্গত, বিশ্বব্যাপী দাম কমার প্রবণতার মধ্যেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় গত ৯ জুন প্রতি লিটার (বোতলজাত) সয়াবিন তেলের দাম সাত টাকা বাড়িয়ে ২০৫ টাকা নির্ধারণ করে। অন্যদিকে পাম তেলের দাম লিটারপ্রতি ১৪ টাকা কমিয়ে ১৫৮ টাকা করা হয়।

বিশ্বব্যাংকের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ২০১৯ সালে অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের গড় মূল্য ছিল টনপ্রতি ৭৬৫ ডলার। ২০২০ সালে দাম ছিল ৮৩৮ ডলার এবং ২০২১ সালে সয়াবিন তেলের টনপ্রতি দাম ছিল এক হাজার ৩৮৫ ডলার। কিন্তু চলতি বছরের মার্চে এক পর্যায়ে তা বেড়ে যায়। মার্চে বিশ্ববাজারে প্রতি টন সয়াবিন তেলের দাম হয় এক হাজার ৯৫৬ ডলার। এপ্রিলে কমে প্রতি টন সয়াবিন তেলের দাম হয় এক হাজার ৯৪৭ ডলার। আর বর্তমানে টনপ্রতি এক হাজার ৪৬৪ ডলারে বিক্রি হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা