kalerkantho

শুক্রবার । ১ জুলাই ২০২২ । ১৭ আষাঢ় ১৪২৯ । ১ জিলহজ ১৪৪৩

মাদারীপুরে নতুন ৫০ বাস নামছে

বিধান মজুমদার, মাদারীপুর   

২৩ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মাদারীপুরে নতুন ৫০ বাস নামছে

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশার অবসান হতে যাচ্ছে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে। সেতু চালু হলে রাজধানীর সঙ্গে ওই অঞ্চলের যোগাযোগব্যবস্থায় নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে। মাদারীপুরে পরিবহন ব্যবসায়ীরা তাই নতুন করে অন্তত ৫০টি যাত্রীবাহী বাস নামাচ্ছেন। এতে মানুষের যাতায়াত যেমন সহজ হবে, তেমনি কর্মসংস্থানসহ বিভিন্ন খাতে এর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঢাকার সঙ্গে এ অঞ্চলের যোগাযোগের অন্যতম রুট শিবচর-বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথ। এতে নানা ভোগান্তি পোহাতে হতো তাদের। বিশেষ করে সময় লাগত অনেক বেশি। সেতু চালু হলে মাদারীপুর থেকে সহজেই বাসে করে ঢাকা যেতে পারবে এ অঞ্চলের যাত্রীরা।

নানা কাজে নিয়মিত ঢাকা যেতে হয় মাদারীপুর শহরের বাসিন্দা সৈয়দ মমসাদ-উজ-জামানকে। তিনি বলেন, ‘আমাদের সব কাজ ঢাকামুখী। প্রতিনিয়ত এই রুটেই যাতায়াত করতে হয়। পদ্মা সেতু চালু হলে যোগাযোগের নতুন মাত্রা যোগ হবে। আমরা চাই, বাংলাদেশের ভালো কম্পানির গাড়িগুলো এই রুটে আসুক এবং সঙ্গে স্থানীয় বাস কম্পানিগুলোও নতুন নতুন যাত্রীসেবা দিয়ে ভালো বাস এই পথে চালু করুক। ’

মাদারীপুর জেলা বাস মালিক সমিতি সূত্রে জানা গেছে, পদ্মা সেতু চালু হলে মাদারীপুর থেকে ঢাকা রুটে মাদারীপুর জেলা বাস মালিক সমিতির ২২টি বাসের সঙ্গে যুক্ত হবে আরো ২৫টি নতুন বাস। এতে বিনিয়োগ হচ্ছে প্রায় ১০ কোটি টাকা। এ ছাড়া মাদারীপুরের সার্বিক পরিবহনের ৫৭টি গাড়ির সঙ্গে যুক্ত হবে নতুন ২০টি চেয়ার কোচ ও পাঁচটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) বাস। এর বাইরে মাদারীপুরের চন্দ্রা পরিবহন, সোনালী পরিবহনের মালিকপক্ষ নিজ নিজ বহরে আরো নতুন বাস যুক্ত করার কথা ভাবছে।

সার্বিক পরিবহনের তত্ত্বাবধায়ক আবুল হোসেন বলেন, ‘আমরা বেশ কিছু নতুন বাস নামাতে যাচ্ছি। পুরাতন গাড়িগুলো মেরামত করে পেন্টিংয়ের কাজ শেষ করে দ্রুত রাস্তায় নামানো হবে। ’

সম্প্রতি মাদারীপুর পুরান বাসস্ট্যান্ড এলাকা ও সার্বিক পরিবহনের বাস ডিপোতে গিয়ে দেখা যায়, বেশ কয়েকটি নতুন বাস সংযোজনের কাজ হয়ে গেছে। নতুন করে আরো কয়েকটি বাসে নানা ধরনের যন্ত্রাংশ সংযোজন করছেন শ্রমিকরা। তাঁদের যেন দম ফেলার সময় নেই। কেউ জ্বালাইয়ে ব্যস্ত, কেউ কাঠামো (বডি) সংযুক্ত করছেন কেউ বা করছেন বাস রং করা ও সাজানোর কাজ। শ্রমিক সুরেশ চন্দ্র সরকার বলেন, ‘পদ্মা সেতু চালু হলে অনেক বাস রাস্তায় নামবে। আমাদের কাজের চাপ দ্বিগুণ বেড়ে গেছে। শ্রমিকরা দিন-রাত এক করে কাজ করছি। ’

মাদারীপুর জেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, ‘পদ্মা সেতু চালু হলে ঢাকার সঙ্গে এ অঞ্চলে মানুষের যাতায়াত অনেক বেড়ে যাবে। সার্বিক, সোনালী ও চন্দ্রা পরিবহনের বাইরে আমরা জেলা বাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ২০টি নতুন বাস ঢাকামুখী করব। বাসে যাত্রীদের সব ধরনের সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। ’

 

 



সাতদিনের সেরা