kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ আগস্ট ২০২২ । ১ ভাদ্র ১৪২৯ । ১৭ মহররম ১৪৪৪

হৃদরোগে আক্রান্ত খালেদা জিয়া, রিং পরানো হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হৃদরোগে আক্রান্ত খালেদা জিয়া, রিং পরানো হয়েছে

খালেদা জিয়া —ফাইল ছবি

হৃদযন্ত্রে সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ব্লক অপসারণ করতে একটি রিং পরানো হয়েছে। গত শুক্রবার মধ্যরাতে তাঁকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি করা হয়। গতকাল শনিবার সকালে তাঁর চিকিৎসায় গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড বৈঠক করে জরুরি ভিত্তিতে এনজিওগ্রাম করার সিদ্ধান্ত নেয়।

পরে দুপুরে অধ্যাপক ডা. শাহাবুদ্দিন তালুকদারের তত্ত্বাবধানে এনজিওগ্রাম করা হলে ব্লক ধরা পড়ায় সেখানে রিং পরানো হয়।

বিজ্ঞাপন

এদিকে খালেদা জিয়ার মাইল্ড হার্ট অ্যাটাক হয়েছে জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। অবিলম্বে খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

গতকাল শনিবার বিকেলে গুলশান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, শুক্রবার মধ্যরাতে খালেদা জিয়া হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখনই চিকিৎসকদের পরামর্শে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতেই অনেকগুলো পরীক্ষা করা হয়। ডাক্তারদের কাছে যতটুকু শুনেছি, তাঁর (খালেদা জিয়ার) একটা মাইল্ড হার্ট অ্যাটাক হয়ে গেছে। হাসপাতালে থাকতে থাকতেই তাঁর আরেকটা উপসর্গ শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। তখন চিকিৎসকরা জরুরি ভিত্তিতে এনজিওগ্রাম করার সিদ্ধান্ত নেন। শনিবার দুপুরে এনজিওগ্রাম করে দেখা গেছে, তাঁর মেইন আর্টারিটা ৯৯ শতাংশ ব্লক। সেখানে সফলভাবে স্টেন্ট করেছেন। ডাক্তাররা আশাবাদী, এই ট্রিটমেন্টের ফলে তিনি আপাতত হার্টের যে সমস্যা সেটা থেকে সাময়িক সেরে উঠবেন।

উন্নত চিকিৎসার জন্য অবিলম্বে বিদেশে না পাঠালে খালেদা জিয়ার জীবন হুমকিতে পড়বে জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, দলের পক্ষ থেকে বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ করে দেওয়ার দাবিতে আন্দোলন করেছি। তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে বিদেশে পাঠানোর জন্য আবেদন করা হয়েছে। এমনকি তাঁর পরিবারের সদস্যরা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখাও করেছেন। কিন্তু সরকার কর্ণপাত করেনি।

এদিকে গতকাল বাদ জোহর রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের নিচতলায় খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা করে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যা বললেন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। তিনি যদি বিদেশে চিকিৎসা নিতে যেতে চান তাহলে তাঁকে আদালতের আইনি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। গতকাল শনিবার রাজধানীর কাকরাইলে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেশে নিতে যেন কোনো সমস্যা না হয় সে ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সে হিসেবেই তাঁর চিকিৎসাসেবা নিচ্ছেন। তাঁকে যদি বিদেশে যেতে হয়, আবার তাঁকে আইনি প্রক্রিয়া ও কোর্টের কাছে যেতে হবে। কোর্ট ছাড়া এ রাস্তাটি খালি নেই। বিদেশে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য আইনি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই যেতে হবে।



সাতদিনের সেরা