kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

আত্মসমর্পণের পর হাজি সেলিম কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আত্মসমর্পণের পর হাজি সেলিম কারাগারে

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় আত্মসমর্পণের পর দণ্ডপ্রাপ্ত সংসদ সদস্য (এমপি) হাজি মো. সেলিমের জামিন আবেদন খারিজ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল রবিবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭-এর বিচারক শহিদুল ইসলামের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

আদালতে হাজি সেলিমের পক্ষে তাঁর আইনজীবী যেকোনো শর্তে জামিন, কারাগারে উন্নত চিকিৎসা ও প্রথম শ্রেণির ডিভিশন চেয়ে পৃথক তিনটি আবেদন করেন। পরে বিকেল ৩টা ১০ মিনিটে হাজি সেলিম আদালতে উপস্থিত হন।

বিজ্ঞাপন

তাঁর উপস্থিতিতে শুনানি শুরু হয়। শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন খারিজ করে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। একই সঙ্গে কারাবিধি মোতাবেক চিকিৎসার নির্দেশ দেওয়া হয়। এ ছাড়া প্রথম শ্রেণির বন্দির মর্যাদা তথা ডিভিশনের আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত। পরে বিকেল ৫টার দিকে আদালত থেকে তাঁকে কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

এর আগে হাজি সেলিমকে বিচারিক (নিম্ন) আদালতে দেওয়া ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং ১০ লাখ টাকা জরিমানার রায় বহাল রাখেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে তাঁকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। ২০২১ সালের ৯ মার্চ বিচারপতি মো. মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই রায় দেন। রায়টি চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে প্রকাশ পায়। এ ছাড়া জরিমানার টাকা অনাদায়ে আদালত তাঁকে আরো এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। একই সঙ্গে রায় প্রকাশের ৩০ দিনের মধ্যে তাঁকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়। আত্মসমর্পণ না করলে জামিন বাতিল করে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির নির্দেশ ছিল। এ ছাড়া জব্দ করা হাজি সেলিমের সম্পত্তি রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করতে বলা হয়।

 

 



সাতদিনের সেরা