kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

নাঈমের সাফল্যে দ্বিতীয় দিন বাংলাদেশের

সাইদুজ্জামান, চট্টগ্রাম থেকে   

১৭ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



নাঈমের সাফল্যে দ্বিতীয় দিন বাংলাদেশের

দলে ফেরাটা দারুণভাবে কাজে লাগিয়ে ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ছয় উইকেট নিয়েছেন নাঈম হাসান। শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংস চার শর নিচে আটকে রাখার অন্যতম রূপকার ছিলেন এই অফস্পিনার। ছবি : মীর ফরিদ

দিনের শেষে বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে নামা মানেই শুরুটা বিস্মৃতির অতলে হারিয়ে যাওয়া, টপাটপ উইকেট পড়ে যে! গতকাল চট্টগ্রামে সেই ধারা থেকে দলকে বের করে এনেছেন দুই ওপেনার। এই স্বস্তির মঞ্চ অবশ্য তৈরি করেছেন বোলাররা। নিষ্প্রাণ উইকেটে শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশি বোলাররা যে বোলিং করেছেন, তা অভিনন্দনযোগ্য। বলার অপেক্ষা রাখে না, টুপি খোলা অভিনন্দন পাবেন মেহেদী হাসান মিরাজের চোটের কারণে টেস্ট প্রত্যাবর্তনের সুযোগ পাওয়া নাঈম হাসান।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয় দিনের ‘টক অব দ্য ডে’ সাকিব আল হাসানের চায়নাম্যান বোলিং। সেটি তাঁর হ্যাটট্রিক সম্ভাবনাকে ছাপিয়েও। তবে সফরকারী দলের প্রথম ইনিংসের ক্যানভাসে সবচেয়ে প্রভাবশালী নাম চট্টগ্রামেরই নাঈম হাসানের। শ্রীলঙ্কার ব্যাটাররা মুঠো গলে বেরিয়ে যাওয়ার মুখে উইকেট নিয়েছেন এই অফস্পিনার। গতকাল অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের ‘স্টেটসম্যান’সুলভ ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কা যখন সত্যি সত্যি চার শ ছাড়িয়ে যাওয়ার হুমকি দিচ্ছিল, তখন ৫ বলের ব্যবধানে দুই উইকেট তুলে নিয়ে লাগাম টেনেছেন নাঈম। টেস্ট ইতিহাসের চতুর্দশ ব্যাটার হিসেবে ১৯৯ রানে আউট হওয়া ম্যাথুজের উইকেটটিও তাঁর। সেই ক্যাচটি নিয়েছেন সাকিব, পর পর দুই বলে জোড়া শিকারে যিনি সাড়ে তিন শর নিচেই লঙ্কানদের আটকে দেওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করেছিলেন।

সেটি হয়নি। টেল এন্ডারদের নিয়ে বরাবরই ঝামেলায় পড়ে বাংলাদেশ। ১০ নম্বরে নামা লঙ্কান পেসার বিশ্ব ফার্নান্ডোর ৮৪ বল খেলে ফেলা যার সর্বশেষ উদাহরণ। শেষ ব্যাটার আসিথা ফার্নান্ডোও ২৭ বল খেলেছেন। তবে এই দুজনের বুক চিতিয়ে লড়াইয়ের অনুপ্রেরণা ম্যাথুজের দুর্দান্ত ব্যাটিং। ব্যাটার সেঞ্চুরি, ডাবল সেঞ্চুরি করেন। তবে নিজের চওড়া কাঁধে যেভাবে পুরো দলের ব্যাটিংকে বহন করেছেন ম্যাথুজ, তা দায়িত্বশীলতার অনন্য নজির। চলমান সিরিজে তিনিই সবচেয়ে অভিজ্ঞ। সেই অভিজ্ঞতার সবটুকু যেন উজাড় করে দিয়েছেন ম্যাথুজ।

বিপর্যস্ত জনজীবনে সুদিন ফিরিয়ে আনার জন্য শ্রীলঙ্কায় পুনর্গঠনের দাবি উঠেছে। কেউ একজন কোনো একদিন হয়তো দ্বীপরাষ্ট্রটিতে শান্তি ফিরিয়েও আনবেন। তবে চট্টগ্রামে পৌনে ১০ ঘণ্টার ঘাম ঝরানো চেষ্টায় শ্রীলঙ্কার পতনোন্মুখ প্রথম ইনিংস দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। বিরতি দিয়ে জোড়ায় জোড়ায় উইকেট পড়েছে। তাই নতুন করে ইনিংস মেরামতে মনোযোগী হতে হয়েছে ম্যাথুজকে। ভীষণ গরম, বাংলাদেশ বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং আর অন্য প্রান্তে উইকেট পতনের ত্রিমুখী আক্রমণ সামলেছেন শ্রীলঙ্কার সাবেক এই অধিনায়ক। নিয়মিত ব্যাটাররা ফিরে যাওয়ার পর টেল এন্ডারদের আড়াল দেওয়ার পাশাপাশি সাহসও জোগাতে হয়েছে ম্যাথুজকে। শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংস মূলত হয়ে দাঁড়িয়েছিল ম্যাথুজ বনাম বাংলাদেশের বোলিং। সেই লড়াইয়ে মাত্র ১ রানের জন্য ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি পাওয়া হয়নি লঙ্কান ব্যাটারের। নাঈমের ৩০তম ওভারের শেষ বলটাকে আগেই টার্গেট করেছিলেন ১৯৯ রানে দাঁড়িয়ে থাকা ম্যাথুজ, ‘আমি মারার চিন্তা আগেই করেছিলাম, কিন্তু টাইমিং হয়নি। সাকিব ক্যাচটা নিয়ে নিল। ’ ল্যান্ডমার্ক হাতছাড়া হওয়ার তাত্ক্ষণিক হতাশা ভুলে তখন চওড়া হাসিতে উদ্ভাসিত অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ।

তবে সবচেয়ে চওড়া হাসি বাংলাদেশের ড্রেসিংরুমে। ৪ উইকেটে ২৫৮ রান নিয়ে দিন শুরু করা লঙ্কানরা দ্বিতীয় দিনের প্রথম ঘণ্টা নিরাপদে কাটিয়ে দিলে নিশ্চিতভাবেই চাপ তৈরি হয় বাংলাদেশ দলের ওপর। ম্যাথুজ আরো থিতু হয়েছেন উইকেটে। দীনেশ চান্ডিমাল তাঁর অভ্যস্ত আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে আত্মবিশ্বাসও পেয়ে গেছেন ততক্ষণে। তাঁর এই আত্মবিশ্বাসই মধ্যাহ্নভোজের বিরতির আগে লাইফলাইন দিয়েছে বাংলাদেশকে। নাঈমকে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে এলবিডাব্লিউ হন চান্ডিমাল। একই ওভারে লেন্থ বুঝতে না পেরে বোল্ড নিরোশান ডিকভেলাও।

মধ্যাহ্নভোজের বিরতির পর বিনা মেঘে বজ পাতে আক্রান্ত হয় লঙ্কানরা। সাকিবের প্রথম বলটা পুল করতে গিয়ে বোল্ড হয়েছেন রমেশ মেন্ডিস। পরের বলটা একটু জোরের ওপর করেছিলেন সাকিব, যা লাসিথ এমবুলদেনিয়ার ব্যাটে লাগার আগে ছুঁয়ে যায় তাঁর প্যাড। রিভিউ নিয়েও রেহাই পাননি তিনি। ৪ উইকেটে ৩১৯ রান থেকে আচমকাই ৮ উইকেটে ৩২৮ শ্রীলঙ্কা। ছাতার মতো ঘিরে ধরা বাংলাদেশি ফিল্ডারদের চাপ উপেক্ষা করে সাকিবের হ্যাটট্রিকই শুধু রোখেননি বিশ্ব ফার্নান্ডো, অভাবিত দৃঢ়তায় ম্যাথুজকে সঙ্গও দিয়েছেন। এর মধ্যে বাংলাদেশি পেসার শরিফুল ইসলামের বাউন্সার হেলমেটে আঘাত হানলে রিটায়ার্ড হার্ট হওয়া ফার্নান্ডো শেষ ব্যাটার হিসেবে আবার নেমেছিলেনও। অপরাজিত থেকেছেন ১৭ রানে।

ব্যাটের চেয়ে তাঁর বোলিংই মূল দাবি শ্রীলঙ্কা দলের। কিন্তু গতকাল ৪ ওভারের স্পেলে বিশেষ সুবিধা করতে পারেননি। একই হাল নতুন বলে তাঁর সঙ্গী আসিথা ফার্নান্ডোরও। দিনশেষে দলের বোলিং নিয়েই বেশি আক্ষেপ ঝরেছে ম্যাথুজের কণ্ঠে, ‘আমাদের বোলিংটা ভালো হয়নি। সহজ রান দিয়েছি। ’ পেসারদের লাইন-লেন্থে গোলমাল দেখে পঞ্চম ওভারেই অফস্পিনার রমেশকে আক্রমণে এনেছিলেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দিমুথ করুণারত্নে। বাঁহাতি স্পিনার এমবুলদেনিয়াকে দিয়েও চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু মাহমুদুল হাসান জয় ও তামিম ইকবালের দৃঢ়তায় কোনো ক্ষয়ক্ষতি ছাড়াই দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ।

স্কোরবোর্ড বলছে, প্রথম দিনের চেয়ে দ্বিতীয় দিনে অপেক্ষাকৃত সুবিধাজনক অবস্থানে বাংলাদেশ দল।

 



সাতদিনের সেরা